খুলনায় বিএনপির মিছিলে লাঠিচার্জ, আহত ১৪

খুলনা প্রতিনিধি :‘গণতন্ত্রের কালো দিবস’ উপলক্ষে খুলনায় বিএনপি আয়োজিত সমাবেশে যোগ দিতে আসা মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এতে দলের ১৪ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। ৫ জানুয়ারি শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর সদর থানার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ক্ষুব্ধ কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় পুলিশ পাঁচ বিএনপি কর্মীকে আটক করেছে। তবে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও বিনা উস্কানিতে লাঠিচার্জের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন খুলনা থানার ওসি মিজানুর রহমান।

দলীয় সূত্র জানায়, ৫ জানুয়ারিকে গণতন্ত্রের কালো দিবস হিসেবে পালন করছে বিএনপি। এ উপলক্ষে বেলা সাড়ে ১১টায় কেডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে মহানগর বিএনপির সমাবেশ শুরু হয়।

সমাবেশে যোগ দিতে খালিশপুর থানা বিএনপির একটি মিছিল পিকচার প্যালেস মোড় হয়ে থানার মোড়ে পৌঁছলে সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিনা উস্কানিতে মিছিলে লাঠিচার্জ শুরু করে।

অতর্কিত হামলায় নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে ছোটাছুটি শুরু করলে সমাবেশস্থলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ খালিশপুরের ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে বেধড়ক পিটিয়ে আটক করে। একই স্থান থেকে যুবদল নেতা মেহেদী হাসান, রুহুল, লিপু মল্লিক ও কুদ্দুসকে আটক করে পুলিশ।

এ সময় দৌলতপুর থানা যুবদল নেতা জি এম মাসুদুল হক মাসুমের মোবাইল ফোনটি তার হাত থেকে পুলিশ কেড়ে নেয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জ এবং নেতাকর্মীদের ইটপাটকেল ও চেয়ার নিক্ষেপের সময় অন্তত ১৪ নেতাকর্মী গুরুতর আহত হন। এদের মধ্যে খালিশপুর থানা বিএনপি নেতা আল আমিনের পা ভেঙে যায়। তাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশের লাঠির আঘাতে দুই মহিলা কর্মী আহত হন। তারা হলেন বিউটি বেগম ও হোসনে আরা।

সমাবেশে খুলনা মহানগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, হামলা চালিয়ে, মামলা দিয়ে, জেলে পুরে খুলনা বিএনপির নেতাকর্মীদের দমন করা যাবে না। পুলিশকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, খুলনার মাটি বিএনপির ঘাঁটি। এখানে চাকরি করতে হলে প্রজাতন্ত্রের সেবা করতে হবে।

বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান মুরাদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, মীর কায়সেদ আলী, অ্যাড. ফজলে হালিম লিটন, ফখরুল আলম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, রেহানা আক্তার, মাহবুব হাসান পিয়ারু, আজিজুল হাসান দুলু, মুজিবর রহমান, কামরান হাসান ও শরিফুল ইসলাম বাবু। সমাবেশের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন মাওলানা আব্দুল গফফার।