ডিআইজি মিজানকে ডিএমপি থেকে প্রত্যাহার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ >
এক নারীকে জোর করে বিয়ের পর নির্যাতন চালানোর অভিযোগ ওঠার পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে ঢাকার অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমানমঙ্গলবার ঢাকার রাজারবাগে পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের এতথ্য জানান।

সোমবার পুলিশ সপ্তাহ উদ্বোধনের আগেই ডিআইজি মিজানের খবরটি গণমাধ্যমে আসার পর তা নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “তার বিষয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এটার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আমরা তাকে ডিএমপি থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত করেছি।”

পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর মিজানের বিষয়ে তদন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে বলে জানান তিনি।

ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মিজানের বিষয়ে পুলিশের তদন্তে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে কি না- প্রশ্ন করা হল আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, “কেন হবে না।”

মিজানের বিরুদ্ধে ঢাকার পান্থপথের বাসিন্দা এক নারী অভিযোগ করেছেন, তাকে তুলে নিয়ে জোর করে বিয়ে করে সংসারও করছিলেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান

ওই নারীর অভিযোগ, প্রায় চার মাস সংসার করার পর ফেইসবুকে স্বামী পরিচয় দিয়ে মিজানের একটি ছবি তোলার পর মিজান তাকে নানাভাবে নির্যাতন শুরু করেন। দুটি ‘মিথ্যা মামলা’ দিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। পরে জামিনে তিনি বেরিয়ে আসেন।

তবে মিজান এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, ওই নারী একজন প্রতারক।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আগে বলেছিলেন, “কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। আইনের ব্যত্যয় যে কেউ ঘটাক, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”