ইউডিসিকে জাতীয়করণ করে উদ্যোক্তাদের রাজস্বখাতে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি অ্যাড.মনিরের এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক>
সারাদেশের সকল ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারকে (ইউডিসি) জাতীয়করণ করে পরিচালকদের (উদ্যোক্তা) রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানিয়েছেন যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির।
বৃহস্পতিবার বিকালে দশম জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশনে কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধি অনুসারে জরুরী জন-গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করে তিনি এ দাবি জানান।
এ সময় তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্থানীয় সরকারের তৃণমূল প্রতিষ্ঠান ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম গতিশীল ও জনগণের দোড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে ২০১০ সালের ১১ই নভেম্বর তার কার্যালয় থেকে এবং নিউজিল্যান্ড এর সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) প্রশাসক মিস হেলেন ক্লার্ক ভোলা জেলার চরকুকরিমুকরি ইউনিয়ন থেকে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে সারাদেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদে একযোগে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র উদ্ভোধন করেন। পরবর্তী সময়ে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রটি ডিজিটাল সেন্টার নামে রূপ লাভ করে।
তিনি আরো বলেন, তাদের কোনো বেতন ভাতা না থাকলেও তারা ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক কাজে সহযোগিতা করে আসছে। যার জন্য তাদেরকে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) ট্রেনিং প্রদান করা হয়েছে। তারা বিনা পারিশ্রমিকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাতীয় তথ্য বাতায়ন (ন্যাশনাল ওয়েব পোর্টাল) তৈরি করেন।
এমপি মনির বলেন, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে প্রান্তিক পর্যায়ে প্রধান ভূমিকা পালন করছে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারগুলো। আইসিটি ব্যবহারের মাধ্যমে সরকারি সেবাগুলো জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়ে সময়, অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি জনগণের ভোগান্তি কমিয়ে আনছে। মাননীয় অর্থমন্ত্রীর কাছে এই ডিজিটাল সেন্টারগুলোতে নিরন্তর সেবা দিয়ে যাওয়া নিবেদিত প্রাণ ৪ হাজার কম্পিউটার অপারেটরের চাকরি যত দ্রুত সম্ভব রাজস্ব খাতে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

এছ্ড়াাও, এক সম্পূরক প্রশ্নে যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর আওতাধীন ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়ায় গ্রাহক সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সাব জোনাল অফিস স্থাপনের দাবি এবং চৌগাছা-ঝিকরগাছা উপজেলার নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিও ভুক্ত করার দাবি সিদ্ধান্ত প্রস্তাবে উত্থাপন করেন এই সংসদ সদস্য।