যশোর উপশহর মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে আটকে রেখে মারপিটের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক>যশোর উপশহর আলীম মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল ওহাবকে একটি ঘরে আটকে রেখে মারপিট এবং হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ওই মাদ্রাসার বহিস্কৃত অধ্যক্ষ আ ন ম আব্দুর রাজ্জাকসহ ৫ জন শিক্ষক গত বুধবার ওই হামলা চালায়।
অন্য অভিযুক্তরা হলেন উপশহর ‘ই’ ব্লক এলাকার মৃত আনসার আলীর ছেলে খায়রুল বাশার, শেখহাটি জামরুলতলা এলাকার মৃত নওয়াব আলীর ছেলে নজরুল ইসলাম, উপশহর এলাকার আতিয়ার রহমানের ছেলে শামীম রেজা এবং বাঘারপাড়া উপজেলার সুখপুকুরিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মুশফিকুর রহমান।
উপশহর ই ব্লক এলাকার আব্দুল লতিফের বাড়ির ভাড়াটিয়া আব্দুল ওহাব অভিযোগ করেছেন, তিনি ওই মাদ্রাসার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ। আ ন ম আব্দুর রাজ্জাক ওই মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ ছিলেন। বর্তমানে তিনি চূড়ান্তভাবে বহিস্কৃত। তিনি বহিস্কৃত হওয়ার পর মাদ্রাসায় অনধিকার প্রবেশ করেন এবং তাকেসহ অন্যান্য শিক্ষকদের গালিগালাজ করে থাকে। এতে মাদ্রাসায় লেখাপড়ার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। গতকাল বুধবার আব্দুল রাজ্জাক মাদ্রাসায় যান এবং অন্যান্য শিক্ষকদের নিয়ে তাকে বেধড়ক মারপিট করেন। তার কক্ষে গিয়ে চাবি ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। তিনি বাঁধা দিতে গেলে তাকে জোর করে মাদ্রাসার পশ্চিমপাশের একটি কক্ষে নিয়ে আটকে রাখেন। সেখানেও আসামিরা তাকে বেধড়ক মারপিট করে জখম করেন। সে সময় অন্যান্য শিক্ষকরা ঠেকাতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও খুন জখমের হুমকি দেয়। পরে মাদ্রাসার মুল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। ঘটনা শুনে মাদ্রসা কমিটির সভাপতি শওকত হোসেনসহ অন্যান্যরা এগিয়ে আসলে আসামিরা পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় আব্দুল ওহাব কোতয়ালি থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।