যশোর থেকে আইন কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্র খুলনায় স্থানান্তরে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর আইন কলেজের এলএলবি প্রথম বর্ষের পরীক্ষা কেন্দ্র এবার খুলনায় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়।এতে বিপাকে পড়েছেন পরীক্ষার্থীরা। তারা কেন্দ্র স্থানান্তর পুনঃবিবেচনার জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর আবেদন করেছেন।
শিক্ষার্থীরা জানান, যশোর শহিদ মশিউর রহমান আইন মহাবিদ্যালয়, মাগুরা ও ঝিনাইদহ আইন মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার নেওয়া হতো যশোরের তিনটি কেন্দ্রে। এর মধ্যে ছিলো যশোর সরকারি এমএম কলেজ, যশোর বিএড কলেজ ও যশোর সরকারি সিটি কলেজ। কিন্তু এ বছর হঠাৎ করে পরীক্ষার কেন্দ্র খুলনাতে স্থানান্তর করা হয়েছে।
যশোর শহিদ মশিউর রহমান আইন মহাবিদ্যালয় আইনের শিক্ষার্থী ইব্রাহিম হোসেন ও সুজন বিশ্বাস জানান, ‘এলএলবি পরীক্ষা শেষ হতে প্রায় এক মাস লেগে যায়। ফলে প্রতিদিন খুলনাতে যাতায়াত কষ্টকর। আবার আবাসিকে থেকে এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ব্যয়বহুল। বিশেষ করে মহিলা শিক্ষার্থীদের হয়রানি বেশি হয় ।’
তারা আরও বলেন, ‘পরীক্ষা সকাল ৯টা থেকে ১ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। যশোর থেকে খুলনায় যেতে কমপক্ষে ২ ঘণ্টা সময় প্রয়োজন। রাস্তার অবস্থাও ভালো না। ফলে খুব সকালে পরীক্ষার জন্য রওনা দিতে হবে। তাছাড়া বাসে চলাচলে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেজন্য বাসে করে খুলনায় গিয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ এলএলবি’র ফলাফলের উপর প্রভাব ফেলবে।’
শিক্ষার্থীরা মাহবুব উর রহমান বলেন, ‘আগামী ২ ফেব্রুয়ারি এলএলবি প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শুরু হবে। পরীক্ষা শুরুর আগে ১৬ জানুয়ারি হঠাৎ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে কেন্দ্র স্থানান্তরের বিষয়টি জানতে পেরেছি। পরীক্ষার কেন্দ্র স্থানান্তরের বিষয়টি পুনঃবিবেচনার জন্য কেন্দ্রীয় পরীক্ষা কমিটির সাথে কথা বলার চেষ্টা করি। কিন্তু নানা জটিলতায় যোগাযোগ সম্ভব হয়নি। পরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর ২১ জানুয়ারি ডাকযোগে পাঠানো হয়। এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত না এলে ২৩ জানুয়ারি প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করা হবে।
এ বিষয়ে যশোর শহিদ মশিউর রহমান আইন মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম বলেন, পরীক্ষা আরও স্বচ্ছতার সাথে নিতে খুলনা বিভাগের আইনের ৮টি কলেজের পরীক্ষা এবার খুলনাতে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়।