চৌগাছায় এসএসসি পরীক্ষা চলাকালে উচ্চশব্দে মাইকিং

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি>
যশোরের চৌগাছায় এসএসসি পরীক্ষা চলাকালে উচ্চশব্দে মাইকিংয়ে পরীক্ষার্থীদের সমস্যা হলেও দেখার যেন কেউ নেই। বৃহস্পতিবার পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে থেকেই এই মাইকিং শুরু হয়ে পরীক্ষা শেষেও চলমান থাকলেও প্রশাসনের কারও নজরেই বাধেনি। মাইকিং করতে করতে উপজেলা পরিষদের সামনে দিয়ে চলাচল করলেও কেউ কোন বাধাও দেননি।
সূত্র জানায়, চৌগাছা পৌর শহরের চারটি প্রতিষ্ঠান চৌগাছা শাহাদৎ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চৌগাছা কামিল মাদ্রাসা, চৌগাছা হাজী সর্দার মর্ত্তুজ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ছারা পাইলট বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি (ভকেশনাল) পরীক্ষা শুরু হয়। চৌগাছার এই চারটি কেন্দ্রই শহরের সড়কের পাশে অবস্থিত। পরীক্ষা শুরুর দিন সকাল থেকেই চৌগাছার পোল্ট্রি মুরগী ব্যবসায়ীরা উচ্চশব্দে বড় চোং ব্যবহার করে মাইকিং করতে থাকে। তারা পরীক্ষা কেন্দ্র গুলির পাশেই মাইকিং করলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। এমনকি উপজেলা পরিষদের গেইটের সামনে গিয়ে মাইকিং করলেও তাদের কিছু বলা হয়নি।
অথচ এর আগের দিনই উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেতে মাইকিং ‘পরীক্ষা শুরুর দুই ঘন্টা পূর্ব থেকে দুই ঘন্টা পর পর্যন্ত পরীক্ষা কেন্দ্রের দুই শ’ মিটারের মধ্যে কোন প্রকার মিছিল, মিটিং, মাইক্রোফোনের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়।’ পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রবেশগেইটে এমন মাইকিংয়ের সময় অভিভাবকরা নিষেধ করলে মাইকিংকারী ব্যক্তি তাদের বলেন, ‘গতকাল আমিই মাইকিং করে ওগুলো নিষেধ করেছিলাম। আমি মাইকিং করলে কোন সমস্যা নেই।’ বেলা সাড়ে এগারটার দিকে একটি ওয়াজ মাহফিলের মাইকিং করা হয়। দু’টি বড় চোং ব্যবহার করে উচ্চ শব্দে মাইকিং করতে করতে পরীক্ষা কেন্দ্রের পাশ দিয়ে গেলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।
একাধিক সচেতন অভিভাবক প্রশ্ন রেখে বলেন, কেন্দ্রের মধ্যে আমাদের ছেলে-মেয়েদের অসুবিধা তো হচ্ছেই। তাহলে আগের দিন মাইকিং করে সতর্ক করার দরকার কি আছে?’