আমরা সন্ত্রাসীদের ধরছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক>

বিএনপিকে ‘নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে’ দলটির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করার অভিযোগ নাকচ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, যারা বিশৃঙ্খলা ও নাশকতার সঙ্গে জড়িত, প্রমাণসাপেক্ষে তাদেরেই গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল (ফাইল ছবি)শনিবার পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তার এ বক্তব্য আসে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “এখানে কোনো রাজনৈতিক ব্যাপার নাই। আমরা সন্ত্রাসীদের ধরছি। যারা ভাংচুরের সাথে জড়িত ছিল, যারা রাইফেল ছিনতাই করতে যাচ্ছিল, যারা পুলিশের ভ্যান থেকে অপরাধীদের ছিনিয়ে নিতে চাচ্ছিল তাদেরকে আমরা ধরার চেষ্টা করছি।”

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার রায় সামনে রেখে দেশে রাজনৈতিক উত্তাপের মধ্যে গত ৩০ জানুয়ারি হাই কোর্ট এলাকায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় বিএনপিকর্মীরা। বেধড়ক পিটুনির শিকার হন কয়েকজন পুলিশ সদস্য, ভাংচুর হয় তাদের গাড়ি ও আগ্নেয়াস্ত্র।

ওই ঘটনায় শাহবাগ থানায় দুটি এবং রমনা থানায় একটি মামলা করে পুলিশ। সেখানে বিএনপির কয়েকশ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমানউল্লাহ আমান, নাজিমউদ্দিন আলম, আজিজুল বারী হেলাল, অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, আনিসুর রহমান খোকন, হাসান মামুন, এ বি এম মোশাররফ হোসেন, মতিউর রহমান মন্টুসহ কয়েকশ নেতাকর্মীকে গত কয়েক দিনে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বিএনপিকে ‘নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই’ সরকার এই গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে দলটির পক্ষ থেকে।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “নির্বাচন তো অনেক দূরে রয়েছে। তার আগে আপনারা দেখছেন বেগম জিয়া যখন আদালতে যাচ্ছেন, সেখানে যাওয়ার পথে আসার পথে যে ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হচ্ছে এবং আপনারা দেখেছেন পুলিশের রাইফেল ভেঙে ফেলেছে।

“আপনারা দেখেছেন প্রিজন ভ্যান থেকে আসামি ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। ২০১৪ সালে রাজশাহীতে পুলিশকে কীভাবে পিটিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল তাও আপনারা দেখেছেন। ঠিক সিমিলার ঘটনা এখানেও ঘটছে।”

ওই হামলায় যারা অংশ নিয়েছে, ভিডিও ফুটেজ দেখে তাদের পুলিশ ধরার চেষ্টা করছে বলে জানান মন্ত্রী।