বিয়ে অস্বীকার করায় যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে বিয়ে করে তিনমাস সংসার করার পর বিয়ের কথা অস্বীকার করায় সুমন হোসেন নামে এক যুবককে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। সোমবার মণিরামপুরের তাহেরপুর গ্রামের আতিয়ার রহমানের মেয়ে যশোর শহরের শংকরপুর জমাদ্দারপাড়ার ভাড়া বাসিন্দা খাদিজা পারভীন মিতা বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো.শাহিনুর রহমান অভিযোগটি গ্রহণ করে কোতয়ালি থানার ওসিকে তদন্ত করে প্রতিবেদক জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন। আসামি সুমন হোসেন ঝিকরগাছার মোবারকপুর গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, আসামি সুমন হোসেনের পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে খাদিজার মোবাইল ফোন নম্বর নিয়ে যায়। ফোনালপের মাধ্যমে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়ে যায়। এরপর প্রায় সুমন দেখা করার জন্য তাকে যশোর শহরে আসতে বলে। ২০১৭ সালের ১৮ অক্টোবর খাদিজা যশোর শহরের আসলে সুমন এসে তাকে উলাশী পিকনিক স্পটে নিয়ে যায়। এরপর সুমন পিকনিক স্পটের রেস্ট হাউজে খাদিজার কাছ থেকে কয়েকটি নীল ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে বিয়ে হয়ে গেছে বলে জানায়। যশোর শহরের শংকরপুর জমাদ্দার পাড়ার ইমরান হোসেনের বাড়িতে ঘর ভাড়া নিয়ে তারা স্বামী-স্ত্রীর মতো দিন কাটাতে থাকে। এরপর খাদিজা তার শ্বশুর বাড়ি যেতে চাইলে সুমন নানা অজুহাত দিয়ে নিয়ে যেতে অপারগতা প্রকাশ করে। এনিয়ে দিনদিন তাদের মধ্যে মতবিরোধের সৃষ্টি হয়। গত ২৭ জানুয়ারি খাদিজা তার ভাড়া বাড়ির লোকজন সাথে নিয়ে শ্বশুর বাড়ি গেলে বিয়ের কথা অস্বীকার করে তাড়িয়ে দেয়। বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।