কেশবপুরে জালিয়াতি মামলায় মোতাওয়াল্লী মশিয়ার কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর কেশবপুরের একটি প্রতারণা ও জালিয়াতি মামলায় হাজী জমশের খান ওয়াকফ ট্রাস্টের মোতাওয়াল্লী মশিয়ার রহমান খানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে আদালত। সোমবার মামলার ধার্য দিনে আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করলে অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারক মুহাম্মদ আকরাম হোসেন শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। মশিয়ার রহমান মধ্যকুল গ্রামের মৃত রজব আলী খানের ছেলে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, হাজী জমশের খান ওয়াকফ ট্রাস্টের মোতওয়াল্লী ছিলেন আব্দুল ওয়াদুদ খান। ১৯৭৮ সালে আসামি মশিয়ার রহমান খান তাকে সরিয়ে দিয়ে নিজে ওয়াকফ ট্রাস্টের মোতাওয়াল্লী হয়। এমধ্যে মশিয়ার রহমান ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে ওয়াকফ ট্রাস্টের জমি বৃদ্ধি করতে থাকে। মরহুম আব্দল ওয়াদুদ খানের ছেলে আয়ুব খান জানতে পারেন তাদের কয়েকটি দাগে ৪ একর ৩৩ শতক পৈত্রিক জমি মশিয়ার রহমান ওয়াকফ ট্রাস্টভুক্ত ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করেছে। আয়ুব খান বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে প্রতারণা ও জালিয়াতির অভিযোগে আদালতে একটি মামলা করেন। আদালতে আদেশ পিবিআই তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়। প্রতিবেদনে মশিয়ার রহমানের জালজালিয়াতির অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়। গতকাল সোমবার মামলার ধার্যদিনে মশিয়ার রহমান আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। বিচারক মামলার শুনানি শেষে জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।