লন্ডনে দূতাবাসে হামলার পেছনে তারেক: কাদের

কক্সবাজার প্রতিনিধি>সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনে হামলা, ভাংচুর ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি অবমাননার ঘটনার নির্দেশ দাতা বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

সোমবার কক্সবাজারে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের নতুন নামকরণ এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ছাত্রনেতা এ টি এম জাফর আলম গেইট উদ্বোধনকালে একথা বলেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের এ সাধারণ সম্পাদক।

দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়ের আগের দিন গত ৭ ফেব্রুয়ারি লন্ডনে বাংলাদেশ হাই কমিশনে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি অবমাননা করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। দুর্নীতির আরেক মামলায় সাজা মাথায় নিয়ে সেখানেই অবস্থান করছেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

ওবায়াদুল কাদের বলেন, দুর্নীতি মামলায় বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনে হামলা, ভাংচুর ও বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতি অবমাননার ঘটনায় নির্দেশদাতা হিসেবে তারেক রহমানের নাম নানা উৎস থেকে পাওয়া যাচ্ছে। তিনি লন্ডনে অবস্থান করে নানা ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেন।

একজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির মুক্তির জন্য বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলার ঘটনা বিশ্বে নজিরবিহীন। এ হামলার মধ্যদিয়ে বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, “দূতাবাস ভবনে হামলার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ইতোমধ্যে ইন্টারপোল সদর দপ্তরে জানানো হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা নিতে এবং ঘটনায় জড়িত দণ্ডিত ব্যক্তিকে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক প্রক্রিয়া চলছে।”

দুর্নীতির আরেকটি মামলায় তারেক আগে থেকেই দণ্ডিত এবং তাকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করতে বিএনপি রাতারাতি দলীয় গঠনতন্ত্র সংশোধন করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ নম্বর ধারায় উল্লেখ রয়েছে মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তি দলীয় পদে থাকতে পারবেন না। দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার পর তারেককে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সনের পদে বসানোর পথ নিষ্কুলষ করতে রাতারাতি দলীয় গঠনতন্ত্র পর্যন্ত সংশোধন করেছে।”

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, আদালতের নির্দেশে কারাগারে খালেদা জিয়াকে যথাযথ ডিভিশন দেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। সরকার বিএনপি প্রধান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার সামাজিক-ব্যক্তিক মর্যদা সম্পর্কে যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল।

“আদালত নির্দেশ দেয়ার আগে থেকেই সরকার কারাগারে খালেদাকে ডিভিশনের সমতুল্য সুযোগ-সুবিধা দিয়ে আসছিল। জেল কোড অনুযায়ী তাকে সবধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে।”

বিএনপি রাজনৈতিক সহমর্মিতা আদায় আর বিদ্বেষ ছড়াতে অহেতুক কূৎসা রটনা করছে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি, সাইমুম সরওয়ার কমল, আশেক উল্লাহ রফিক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান সহ দলীয় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এরপর মন্ত্রী উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যান।