পুলিশে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা মামলায় এবার কেশবপুরের আ.লীগ নেতা আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক>
পুলিশ কনস্টেবল পদ চাকরি পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে ৫ লাখ টাকার চেক হাতিয়ে নেওয়ার মামলায় কেশবপুর উপজেলার বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেনও আটক হয়েছেন। গত শনিবার রাতে কেশবপুর শহর থেকে তাকে আটক করা হয়। কোতয়ালি মডেল থানার পুলিশ কেশবপুর থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে আটক করে। তার বাড়ি উপজেলার ভান্ডারখোলা গ্রামে। একই অপরাধে এর আগে যশোর শহর থেকে আটক হয় আজিজুর রহমান নামে আরেক প্রতারক। তিনি কেশবপুর উপজেলার ভা-ারখোলা গ্রামের মৃত সালামত উল্যাহর ছেলে।
কেশবপুর উপজেলার হাড়িয়া ঘোপ গ্রামের বৃষ্টি খাতুন নামে এক যুবতীকে পুলিশের নারী কনস্টেবল পদে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে ৫ লাখ ৫ হাজার টাকার একটি ব্যাংকের চেক হাতিয়ে নেন আজিজুর রহমান ও ইব্রাহিম হোসেন। ২২ ফেব্রুয়ারি যশোর পুলিশ লাইন্সে কনস্টেবল পদে নিয়োগ পরীক্ষা দিতে আসেন বৃষ্টি খাতুন। কিন্তু প্রথম পর্যায়ে মাপজোকে তাকে অযোগ্য ঘোষণা করায় প্রতারকদের জারিজুরি ফাঁস হয়ে যায়। এ নিয়ে আজিজুর রহমানের সাথে বৃষ্টি খাতুনের পরিবারের হট্টগোল শুরু হলে খবর পেয়ে সেখানে হাজির হয় কোতয়ালী মডেল থানার পুলিশ। আটক হন আজিজুর রহমান। পরে প্রতারকদের নেয়া ৫ লাখ ৫ হাজার টাকার চেক উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় রাতেই থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এরপর শনিবার রাতে আটক করা হয় ইব্রাহিম হোসেনকে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল বাশার মিয়া আসামি ইব্রাহিম হোসেন আটকের সত্যতা স্বীকার করেন।