ইবি ভিসির গাড়িতে হামলার ঘটনা ছিল ডাকাতি

ইবি প্রতিনিধি>ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর গাড়িতে হামলার ঘটনাটি ছিল ডাকাতি। ঘটনার দুইমাস পর এই ঘটনায় সরঞ্জামাদিসহ দুইজন ডাকাতকে আটক করেছে শৈলকুপা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাদের আটক করা হয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে। আটককৃতরা হচ্ছেন বিল্লাল হোসেন (৩৮) এবং দুর্লভ হোসেন (৩২)।

বিল্লাল হোসেন শৈলকুপা থানার হরিনাকুন্ডুর হাজাম পাড়ার মৃত রিয়াজ মোল্লার ছেলে এবং দুর্লভ হোসেন একই থানার মৃত মাহাতাব হোসেনের ছেলে। এ সময় আটককৃতদের দেওয়া তথ্যে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ৫টি রামদা, ১টি চাপাতি, ২টি গাছ কাটার চায়না করাত, দড়ি ও বানর টুপি উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় উপাচার্যের কাছ থেকে নেওয়া মোবাইলটি ও ৯ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘ দিনের প্রচেষ্টায় তাদেরকে আটক করা হয়েছে। এদের সাথে আরও ডাকাত জড়িত রয়েছে। তাকে ধরার প্রক্রিয়া চলছে।’

তদন্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক আল মেহেদী বলেন, ‘মোবাইলের সূত্র ধরেই তাদের আটক করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের করা মামলা অনুযায়ী তাদের শাস্তি হবে।’

উল্লেখ্য, গত ২৫ জানুয়ারী ঢাকা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার পথে শৈলকুপা থানার বড়দাহ নামক স্থানে রাত পৌনে ৪টার দিকে হামলার নিজ গাড়িতে শিকার হন ইবি উপাচার্য। এ ঘটনায় শৈলকুপা থানায় দুটি মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।