সাতক্ষীরারায় খাসজমি ভূমিহীনদের নামে বন্দোবস্তের দাবি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি :

সাতক্ষীরারায় খাসজমি ভূমিহীনদের নামে বন্দোবস্তের দাবি

জেলার দেবহাটা উপজেলার নোড়ারচক খাসজমি ভূমিহীনদের নামে বন্দোবস্ত করা এবং ভূমিদস্যুদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে নোড়ারচক ভূমিহীন সংগ্রাম কমিটি এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

দেবহাটা নোড়ার চক ভূমিহীন সংগ্রাম কমিটির সভাপতি আব্দুল গফ্ফারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দেবহাটা- কালিগঞ্জ ভূমিহীন উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওহাব আলী সরদার।

বক্তব্য দেন সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির সভাপতি মো. কওছার আলী( একাংশ), ভূমিহীন ঐক্যপরিষদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা উন্নয়ন যুব সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোফিজুর রহমান, প্রতিবন্ধী পূনর্বাসন কল্যাণ সমিতির মহাসচিব আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দেবহাটা পারুলিয়া মৌজায় খাস খতিয়ানে ৭৩টি দাগে ১ হাজার ৯৬৭ বিঘা খাস জমি আছে।

২০০৮ সাল থেকে ভূমিহীনরা সেখানে বসবাস শুরু করে। সাবেক সফল স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি মহোদয়ের কাছে আমরা আবেদনের প্রেক্ষিতে তিনি মন্ত্রণালয় থেকে ভূমিহীনদের পক্ষে অনুমোদন করিয়ে তৎকালীন জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশে নোড়ার চারকুনি আবাদের ৬৪৯.৩০ একর জমি জলমহল শ্রেণি থেকে পরিবর্তন করে কৃষিযোগ্য জমিতে রুপান্তর করার জন্য স্থানীয় ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল করেন।

জিপি গাজী লূৎফার রহমান ভূমিদস্যুদের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে ভূমিহীনদের উচ্ছেদের পাঁয়তারায় এখনও লিপ্ত রয়েছে। যিনি রক্ষক, তিনিই ভক্ষক সে কারণে দুর্নীতিবাজ জিপি এড. গাজী লুৎফার রহমানের জিপি পদ থেকে অপসারণ করতে হবে।

নোড়ারচকসহ সকল খাস জমি ভূমিহীনদের নামে বন্দোবস্ত করে দিতে হবে।

ভূমিহীনদের নামে দায়ের করা সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

সর্বোপরি ১৯৯৮ সালের ২৮ আগস্ট দেবহাটা দেবী শহর ফুটবল মাঠে আপনার (মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা)  কর্তৃক ঘোষিত সকল প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে হবে।