জটিলতার নিরসন : যশোরে পৌরসভার অনুমোদিত ২৭শ’ ইজিবাইকই চলবে

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর পৌর এলাকায় ইজিবাইক চলাচল নিয়ে জটিলতার নিরসন হয়েছে গতকাল দুপুরে। একই সাথে তিনদিন পর লাঘব হল সাধারণ মানুষের চলাচলের দুর্ভোগ।
গতকাল সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জেলার সড়ক চলাচল কর্তৃপক্ষ ( রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি-আরটিএ)’র সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সভায় যশোর পৌর এলাকায় চলাচলকারী ইজিবাইকের সংখ্যা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। সভা শেষে ইজিবাইক চালক মালিকদের এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেয়া হয়েছে। কয়েক হাজার ইজিবাইক চালক ও মালিক সকাল থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অপেক্ষমাণ ছিলেন সিদ্ধান্ত জানার জন্য।
আরটিএ’র সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমানে পৌর এলাকায় চলাচলরত ২ হাজার ৭শ’র বেশি ইজিবাইক চলতে পারবে না। ইজিবাইকচালকদের এখন থেকে পৌরসভা কর্তৃক সরবারহকৃত স্মার্ট কার্ড ব্যবহার করতে হবে। ইতোমধ্যে ৪শ’ কার্ড সরবরাহ করা হয়েছে। আগামী ২০ জুলাইয়ের মধ্যে বাকি ২৩শ’ কার্ড চালকদের পৌরসভা থেকে সংগ্রহ করতে হবে। এছাড়া অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি যাচাই করবে শহরের রাস্তা গুলোতে কতটা ইজিবাইকের ধারণ ক্ষমতা রয়েছে। ৭ সদস্যের ওই কমিটি আরটিএ’র কমিটিতে আরো নতুন কিছু সুপারিশ দেবেন। সেই অনুযায়ী ইজিবাইক পরিচালনা করবেন চালক ও মালিকগণ। আর শহরের কোন এলাকায় ইজিবাইক থেকে চাঁদা আদায় করা যাবে না। চাঁদা আদায় করলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।
সভা শেষে জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল এবং পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু চালক ও মালিকদের এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন। মালিক শ্রমিক ওই সিদ্ধান্ত মেনে নেন এবং ইজিবাইক চলাচলের উপর যে নিষেধাজ্ঞা ছিল তা প্রত্যাহার করে নেয় জেলা প্রশাসন।
এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আরটিএ’র সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করে কমিটির সভাপতি
জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়ালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, বিআরটিএ’র যশোর অঞ্চলের উপ-পরিচালক মোরসালিন আহমেদ, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হুসাইন শওকত, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেব প্রসাদ পাল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সালাউদ্দিন সিকদার, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুনসহ কমিটির নেতৃবৃন্দ।
গত বৃহস্পতিবার রাতে প্রশাসনের পক্ষে মাইকিং করে পৌর এলাকার মধ্যে সকল প্রকার ইজিবাইক ও অটো রিকসা চলাচল পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার আহবান জানানো হয়। এই নির্দেশনা না মানলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়। ওই ঘোষণার পর থেকে গত তিনদিন এবং সোমবার একবেলা ইজিবাইক ও অটো রিকসা চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে দুর্ভোগে পড়েন সাধারণ মানুষ। এ নিয়ে ইজিবাইক চালক ও মালিক সমন্বয় পরিষদ এবং যশোরের বাম প্রগতিশীল দলের নেতারা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। একই সাথে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেন। জেলা প্রশাসকও জেলা আরটিএ’র সভায় এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার ব্যাপারে মত প্রকাশ করেন। সে অনুযায়ী সোমবার সভা হয় এবং গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের বিষয়টি জানিয়ে দেন। ইজিবাইক চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেন।