ঝিকরগাছায় জালিয়াতি মামলায় ৬ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরের ঝিকরগাছার একটি জাল জালিয়াতি মামলায় ৬ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে সিআইডি পুলিশ। মামলার তদন্ত শেষে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন পরিদর্শক (ওসি) মীর রেজাউল হোসেন। আসামিরা হলো খুলনা পাইকগাছার সলুয়া গ্রামের দিলীপ বিশ্বাসের ছেলে পবিত্র বিশ্বাস পলাশ, যশোর শহরের খড়কি জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের পিছনের নুরুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত গোলাম অহেদের ছেলে শাকিল আহমেদ, পশ্চিম বারান্দীপাড়ার লিয়াকত আলীর ছেলে জাফর হোসেন, শার্শার যাদবপুর গ্রামের মৃত শাহেদ আলীর ছেলে কামাল শিকদার, কাজীরবেড় গ্রামের সেকেন্দার আলীর ছেলে আবুল কালাম ও দক্ষিন বুরুজবাগান গ্রামের খতিব মোড়লের ছেলে আনোয়ার হোসেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ২৬ অক্টোবর রাতে ঝিকরগাছা থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সম্মিলনী স্কুলপাড়ার সনৎ কুমারের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় বাড়ির তিনতলার একটি কক্ষ থেকে পবিত্র বিশ্বাস পলাশকে আটক, ওয়ারলেস সেট, হ্যান্ডকাপ, অস্ত্র-গুলি ও গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এরপর পবিত্র’র ব্যবহৃত একটি পালসার মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়। যা ছিল চোরাই। আসামিরা বিভিন্ন জায়াগায় নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছিল। পবিত্র বিশ্বাসের স্বীকারোক্তিতে যশোর শহর থেকে শাকিল ও জাফরকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে যানবাহনের ৫টি ভুয়া নাম্বার প্লেট, ৫৮টি নকল নিবন্ধন ও কর পরিশোধের সনদপত্র, একটি ব্লু-বুক, রোড পারমিট সনদ, ৪২টি বিভিন্ন সরকারি অফিসের সিল ও একটি কম্পিউটার উদ্ধার করা হয়। এসআই সরজিত কুমার ঘোষ বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে জাল-জালিয়াতির অভিযোগে ঝিকরগাছা থানায় একটি মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে সিআইডি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। মামলার তদন্তকালে আটক আসামিদের দেয়া তথ্য ও স্বাক্ষীদের বক্তব্যে ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় ওই ৬ জনকে আসামি করে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। চার্জশিটে অভিযুক্ত কালাম শিকদার, আবুল কালাম ও আনোয়ার হোসেনকে পলাতক দেখানো হয়েছে।