মণিরামপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১২ মামলার আসামি হাশিমপুরের বাবলা নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরের মণিরামপুরে দুইদল ডাকাতের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বাবলা (৩১) নামে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে উপজেলার রাজগঞ্জ কোদলাপাড়া জামতলা এলাকার রাস্তার পূর্বপাশে ঘটনাটি ঘটে। তার বিরুদ্ধে হত্যা, অস্ত্র, বিস্ফোরক, মারামারিসহ ১২টি মামলা আছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। বাবলা যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর গ্রামের আমজাদ আলী মোল্লার ছেলে।
মণিরামপুর থানার ওসি মোকারম হোসেন জানিয়েছেন, বুধবার ভোর ৫টার দিকে যশোর-রাজগঞ্জ সড়কের কোদলাপাড়া জামতলার কাছ থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে তা উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি তৈরি পাইপগান উদ্ধার করা হয়। পরে খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন, মঙ্গলবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে কোদলাপাড়া জামতলার কাছে দুইদল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলি হয়। ওই গোলাগুলিতে ওই যুবক মারা যায়। বুধবার সকালে তার পরিচয় জানাগেছে। তার নাম বাবলা। সদর উপজেলার ইছালী ইউনিয়নের হাশিমপুর গ্রামের আমজাদ মোল্লার ছেলে। তার বিরুদ্ধে ৪টি, হত্যা, ৪টি অস্ত্র আইন, ১টি মাদক, একটি বিস্ফোরক এবং দুইটি মারামারি মামলা আছে।
তবে এই বিষয়ে নিহতের চাচাতো ভাই শওকত আলী জানিয়েছেন, বাবলার বিরুদ্ধে ৭/৮টি মামলা আছে। সবগুলো মামলায় সে জামিন পেলে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে কারাগার থেকে বের হয়। এরপর সে নিখোঁজ ছিল। বুধবার সকালে হাসপাতালে এসে বাবলার মরদেহ সনাক্ত করি।
এলাকাবাসি জানিয়েছে, বাবলা সন্ত্রাসী ছিল। তার ভাই জুয়েলও ওই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। জুয়েলের বিরুদ্ধে হত্যাসহ একাধিক মামলা আছে।