কানাডার বিরুদ্ধে আটক হুয়াওয়ে কর্মকর্তার মামলা

কানাডার বিরুদ্ধে আটক হুয়াওয়ে কর্মকর্তার মামলা

 

চীনের বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়ায়ের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মেং ওয়াংঝু কানাডার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন বলে সোমবার জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

 

যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে কানাডা তাকে অঅটক করায় এই মামলা দায়ের করেন।

হুয়াওয়ে ইরানের ওপর আরোপিত মার্কিন অবরোধ উপেক্ষা করছে— এই অভিযোগে গত ডিসেম্বর মাসে তাকে কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে আটক করা হয়।

শুক্রবার দায়ের মামলায় মেং অভিযোগ করেন, কানাডার সরকার, সীমান্তবিষয়ক সংস্থা এবং পুলিশ তার নাগরিক অধিকার ‘দারুণভাবে লঙ্ঘন’ করেছে।

ওইদিনই কানাডার সরকার মেংকে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করে।

আগামী ৬ মার্চ মেং আদালতে উপস্থিত হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তরের মামলার শুনানির তারিখ জানানো হবে।

চীন সরকার মেংয়ের গ্রেপ্তার ও যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্তকে একটি ‘রাজনৈতিক ঘটনা’ হিসেবে সমালোচনা করেছে। মেং ও হুয়াওয়ে উভয়ই তাদের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

মেংয়ের তার মামলায়, রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ (আরসিএমপি), কানাডার বর্ডার সার্ভিস এজেন্সি (সিবিএসএ) এবং ফেডারেল সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন।

মেংয়ের অভিযোগ, আরসিএমপি তাকে আটক করার আগে সিবিএসএ কর্মকর্তারা মিথ্যা পরিচয় দিয়ে তাকে এয়ারপোর্টে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

ওই সময়ে কর্মকর্তারা তার কাছ থেকে যেসব তথ্য আদায় করেন, ‘তাৎক্ষণিক আটক করা হলে মেংয়ের কাছ থেকে সেসব তথ্য পাওয়া যেত না’, বলে অভিযোগ করা হয়।

তাকে আটকে রাখাও হয়েছিল ‘বেআইনি’ এবং ‘স্বেচ্ছাচারীভাবে’ এবং অফিসাররা তাকে আটকের কারণ জানাতে পারেননি, তাকে আইনজীবীর পরামর্শ নিতে বলেনি এবং কথা না বলার অধিকার সম্পর্কে অবহিত করেনি, অভিযোগ করেন মেং।

মেং বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম মোবাইল নির্মাতা হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে। তাকে আটকের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার সঙ্গে চীনের সম্পর্কে টানাপোড়েন শুরু হয়।