যশোরে জামায়াত নেতা মাস্টার নুরুন্নবীসহ ৪৬ নেতাকর্মী কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর জেলা জামায়াত নেতা মাস্টার নুরুন্নবীসহ ৪৬ নেতাকর্মী আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। গত দুইদিনে তারা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। স্ব-স্ব আদালতের বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।
মঙ্গলবার আত্মসমর্পণ করেন যশোর শহরের বকচর এলাকার মাস্টার নুরুন্নবী ওরফে নুরুল্লাহ, মণিরামপুরের হাজরাকাটি গ্রামের মিজানুর রহমান, আবুল হোসেন, চৌগাছা উপজেলার বাজেখড়িঞ্চা গ্রামের মিজানুর রহমান, হাজরাকাটি গ্রামের মারুফ হোসেন, আবু জাফর, নাজমুল ইসলাম, ইব্রাহিম খলিল, মোমিন উদ্দিন, আব্দুল গণি, আলমগীর হোসেন, আশরাফুজ্জামান, মনিরুজ্জামান, আবুল হাসান, আলমগীর হোসেন আলম, শার্শা উপজেলার পানবুড়ি গ্রামের রেজাউল ইসলাম।
সোমবার আত্মসমর্পণ করেন, মণিরামপুরের বিপ্রকোনা গ্রামের আব্দুর রউফ, আলমগীর হোসেন, শ্যামনগর গ্রামের নাজমুল হাসান, রেজাউল ইসলাম, হযরত আলী, মাসুম বিল্লাহ, শরিফুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন, ইমান আলী, দুর্বাডাঙ্গা গ্রামের তৌহিদুর রহমান, আলতাফ হোসেন, সলেমান সরদার, নেহালপুরের মিন্টু দফাদার, দত্তকোনার গোলাম মোস্তফা, শরিফুল ইসলাম, পাড়িয়ালির রবিউল ইসলাম, খাটুয়াডাঙ্গার শহিদুল ইসলাম, জোবায়ের হোসেন, মোশারেফ হোসেন, ইমরান হোসেন, মাহাবুবুর রহমান, বাজিতপুরের রফিকুল ইসলাম, গালদাহ গ্রামের আনিছুর রহমান, কোনাখোলার ইনছার উদ্দিন, যশোর শহরের শংকরপুরের কাওছার আলী, বাঘারপাড়া উপজেলার শেখেরবাতান গ্রামের মনিরুজ্জামান, আব্দুল হাই, বাঘারপাড়া উপজেলা শহরের ওলিয়ার রহমান।
আত্মসমর্পণকৃত সকলেই নাশকতার পরিকল্পনা ও বিস্ফোরণ মামলার আসামি। তারা পুলিশি গ্রেফতার এড়াতে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। স্ব-স্ব আদালতের বিচারক আসামিদের জামিন আবেদনের শুনানি শেষে নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।