যশোর ইডেন মার্কেটে পর্নো গ্রাফি বিক্রির দায়ে ৭ জনের দন্ড, কম্পিউটার জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর জেলা প্রশাসন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত শহরের ইডেন মার্কেটে অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে ১ মাস করে সশ্রম কারাদন্ড ও ১৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। একই সাথে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ৭ টি কম্পিউটার জব্দ করে বাজেয়াপ্ত করা হয়। মোবাইলের সফটওয়্যার আপলোডের আড়ালে পর্নো ছবি লোড দেয়ার অপরাধে মামলা দিয়ে এ সাজা দেয়া হয়। মঙ্গলবার পরিচালিত এ ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাফিজুল হক, মোহাম্মদ জামশেদুল আলম ও কাউছার হামিদ। সাজাপ্রাপ্তরা হলো ইডেন মার্কেটের ব্যবসায়ী যশোর সদরের ভাতুড়িয়ার আসলাম আলীর ছেলে রাব্বি, শহরের খড়কির সাহেব আলীর ছেলে শাকিল, মিশনপাড়ার ওয়াপদা মোড় এলাকার সুরঞ্জনের ছেলে জনি, কারবালার রবিনের ছেলে রিংকু, মাইকপট্টির লক্ষণের ছেলে সুমন কুমার, বাগেরহাট ফকিরহাটের আশিকের ছেলে প্রদীপ ও পলাতক সুজন।
আদালতের পেশকার শেখ জালাল উদ্দীন জানিয়েছেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিকেলে শহরের এমকে রোডের ইডেন মার্কেটে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় মার্কেটের গেট বন্ধ করে দোকানের সামনে সাজিয়ে রাখা কম্পিউটারগুলো একে একে পরীক্ষা করে দেখা হয়। প্রতিটি কম্পিউটারে পর্নো ছবি পাওয়া যায়। এ সময় রাব্বি, প্রদীপ, শাকিল, জনি, রিংকু ও সুমনকে কম্পিউটারসহ আটক করা হয়। এর মধ্যে সুজন তার কম্পিউটার ফেলে পালিয়ে যায়।
এরপর মার্কেটের মধ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক পর্নোগ্রাফি আইনের ৪ ও ৮ ধারায় ৭ জনকে ১ মাস করে সশ্রম কারাদন্ড, ১৫ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও ১৫ দিন করে কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন।
একই সময় আটক যশোর মণিরামপুরের ঢাকুরিয়ার নুর হোসেনের ছেলে সোয়াদ শিশু হওয়ায় তাকে শিশু আদালতে বিচারের জন্য সোপর্দ করা হবে বলে জানায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। সাজাপ্রাপ্তদের কারাগারে পাঠিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ইডেন মার্কেটের সাধারাণ সম্পাদক লুৎফর রহমানের কাছ থেকে মুচলেকা গ্রহণ করেছে যাতে আর এ মার্কেটে কোন পর্নো ছবির লোডের ব্যবসা করতে না পারে।