চুড়ামনকাটিতে মেছো বাঘ হত্যার পর ঝুলানো হলো খুঁটিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক:মেছো বাঘের আক্রমণে ছাগলের মৃত্যুতে ক্ষুদ্ধ হয়ে একটি মেছো বাঘ পিটিয়ে হত্যা করা করেছে গ্রামকাসী। এরপর বাঘটিকে খুঁটিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়। গতকাল যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের নলডাঙ্গা গ্রামে এঘটনা ঘটে । বাঘ ধরার খবর শুনে সেটি দেখার জন্য কয়েক গ্রামের লোকজন সেখানে ছুটে আসে। পরে বাঘটি মাটি চাপা দেয়া হয় বলে এলাকার লোকজন জানিয়েছেন।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নলডাঙ্গা গ্রামের পিরতলা এলাকায় নতুন বাড়িতে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন মোন্তাজ আলীর দুই ছেলে হাকিম আলী ও মুক্তার আলী। শুক্রবার ভোরে তাদের গোয়াল ঘরে থাকা ছাগলটি জোরে জোরে ডাকতে থাকে। এসময় বাড়ির লোকজন সেখানে গিয়ে দেখে ছাগলটিকে কামড় দিচ্ছে মেছো বাঘ। পরিবারের সদস্যরা বাঘ দেখে চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন সেখানে আসে। গোয়াল ঘরটি নেট দিয়ে ঘেরা থাকায় বাঘটি বের হতে পারেনি। এসময় গ্রামবাসী বাঘটি পিটিয়ে হত্যা করে। পরে তা খুঁটিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়। সাজিয়ালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই সুকুমার কুন্ডু জানান, গোয়াল ঘরে হানা দিয়ে ছাগল মারার পর গ্রামবাসী বাঘটি পিটিয়ে হত্যা করেছে। সন্ধ্যায় বাঘটি মাটি চাপা দিয়েছে গ্রামবাসী। চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান মুন্না জানান, নলডাঙ্গায় গ্রামবাসী মেঘো বাঘ পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে শুনেছি। তবে বাঘটি কোথা থেকে কিভাবে সেখানে এসেছিল তা জানা যায়নি। এদিকে,নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন যুবক জানান, মেছো বাঘটি যখন গোয়াল ঘরে নেটে আটকে ছিল। তাহলে সেটি হত্যা না করে বনবিভাগের লোকজনকে খবর দেয়া উচিৎ ছিল বলে তারা মনে করেন।