মন্ত্রী হওয়ার জন্য আমার কোন চেষ্টা ছিলনা : প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

নিজস্ব প্রতিবেদক:স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন অর্থ ও ধন সম্পদ যারা ভালোবাসে তারা মানুষের জন্যে কিছু করতে পারেনা। সাধারণ মানুষ আমার কাছে আসে এটাই আমার জীবনে বড় পাওয়া। তিনি বলেন এমপি হওয়ার জন্যে একটু চেষ্টা করলেও মন্ত্রী হওয়ার জন্যে আমার কোন চেষ্টা ছিলনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মন্ত্রীত্ব দিয়েছেন আমি তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ। সেই সাথে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে কাজ করে যেতে আমি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। বেসরকারি সংস্থা জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের ’রাজনীতিতে সমাজকর্ম সম্মাননা ২০১৯ প্রদানকালে একথা বলেন তিনি। যশোর শহরস্থ সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় প্রাঙ্গণে এই সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংস্থাটির পরিচালনা পরিষদ সদস্য হারুন অর রশিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন নির্বাহী পরিচালক আজাদুল কবীর আরজু। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন এবং বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষাবিদ তারাপদ দাস, মুক্তিযোদ্ধা অশোক রায় ও প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন। এসময় প্রতিমন্ত্রীকে উত্তরীয় পরিয়ে নৌকা সাদৃশ্য সম্মাননা স্মারক ও ২০ হাজার টাকা সম্মাননা অর্থ প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন পাকিস্তান আমলে কিছুদিন ছাত্র ইউনিয়ন করেছি। তারপরে যশোরের আওয়ামী লীগ নেতা সুবোধ মিত্রের সংষ্পর্শে এসে ছাত্রলীগ এবং পরে আওয়ামী লীগের রজনীতিতে জড়িয়ে পড়ি। তিনি বলেন আমাদের গোটা পরিবার মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের। আমরা তিন ভাই যুদ্ধে অংশ নিয়েছি। দেশ স্বাধীনের পরে ৭৫ এর ১৫ আগস্ট বড়দা (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য) ভারতে চলে গেলে আমার স্থান হয় কারাগারে। ১৯ মাস কারাবাসের পরে আবারও রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে উঠি। তিনি বলেন আমি মন্ত্রী হবো কখনো ভাবিনি। সংসদ সদস্যের শপথ নিয়ে সেদিনই যশোরে ফিরে আসি। পরে খবর পায় আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম মারা গেছেন। সেই সংবাদ পেয়ে ঢাকায় ফিরে যায়। পরে একদিন আমাকে ফোনে জানানো হলো প্রধানমন্ত্রী আমাকে মন্ত্রী হিসেবে তালিকায় রেখেছেন। এরপর বিষয়টি পত্রের মাধ্যমে আমাকে জানানো হয়। কিন্তু কাউকে তখন বিষয়টি জানায়নি। টেলিভিশনের মাধ্যমে নিশ্চিত হই। প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন আমি শুধু মণিরামপুরের মন্ত্রী নই। ৬৮ হাজার গ্রামের মন্ত্রী তবে অবহেলিত যশোরসহ খুলনা বিভাগের উন্নয়নে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করে যাব।