রিয়ালের কাছে ১৬ মিলিয়ন বেতন চাইলেন পগবা !

ইংল্যান্ডের পত্রিকা এক পত্রিকা দাবি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ফরাসি মিডফিল্ডারের জন্য ১২৫ মিলিয়ন পাউন্ড বা ১৪৫ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব করতে যাচ্ছে রিয়াল। একই দিনে ইতালিয়ান ক্রীড়া দৈনিক তাত্তোস্পোর্টস-এর খবর, রিয়ালের কাছে বার্ষিক ১৬ মিলিয়ন ইউরো বেতন দাবি করেছেন পগবা!

২০১৬ সালেই পগবাকে কিনতে চেয়েছিল রিয়াল। জিদানই পছন্দ করেছিলেন স্বদেশি পগবাকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত রিয়ালকে টেক্কা দিয়ে পগবাকে তৎকালীন রেকর্ড ১০৫ মিলিয়ন ইউরোয় কিনে নেয় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সময়ের চাকায় ঘুরে সেই জিদান আবারও রিয়ালের কোচের দায়িত্বে ফিরেছেন। আর জিদান নতুন করে কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই রিয়াল ও পগবাকে নিয়ে শুরু হয়েছে গুঞ্জন খেলা।

গুঞ্জনটা অবশ্য উসকে দিয়েছেন ২৬ বছর বয়সী পগবা নিজেই। স্পেনের গণমাধ্যমগুলো খবর ছাপায়, রিয়ালের ক্রয় তালিকায় পগবার নামটি যোগ করেছেন জিদান। এই খবরের পরপরই প্রকাশ্য সংবাদ সম্মেলনে রিয়াল মাদ্রিদ ও কোচ জিদানের প্রশংসায় মেতে উঠেন পগবা।

স্পষ্ট কণ্ঠেই বলেন, বিশ্বসেরা রিয়ালে খেলা এবং কিংবদন্তি জিদানের সঙ্গে কাজ করা প্রত্যেক খেলোয়াড়েরই স্বপ্ন। ব্যস, দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে ইউরোপের গণমাধ্যমগুলো বানাতে থাকে নতুন নতুন গল্প। যে গল্পের সর্বশেষ সংস্করণ, পগবার জন্য রিয়ালের ১৪৫ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব তৈরি এবং পগবার বার্ষিক ১৬ মিলিয়ন ইউরো বেতন দাবি।

ইংল্যান্ডের পত্রিকাটির দাবি, রিয়াল সবে প্রস্তাবটা তৈরি করছে। এখনো পগবার ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে পাঠায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, শিগগিরই প্রস্তাবটা পাঠাবে রিয়ালে। তবে ক্লাব ইউনাইটেডের কাছে প্রস্তাব না পাঠালেও রিয়াল নাকি তলেতলে পগবার এজেন্ট মিনো রাইওলার সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

সম্প্রতি নাকি মিনো রাইওলার সঙ্গে এক গোপন বৈঠক করেছেন রিয়ালের কর্তারা। সেই বৈঠকেই এজেন্ট মিনো রাইওলা রিয়াল কর্তাদের কাছে তার মক্কেলের হয়ে বার্ষিক ১৬ মিলিয়ন ইউরো বেতন দাবি করেছেন।

খবর দুটো কতটা সত্য সেটা জানা যাবে পরে। তবে রিয়াল কর্তারা যে তলেতলে পগবার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন এবং পগবাও ইউনাইটেড ছেড়ে রিয়ালে যেতে রাজি সেটি স্পষ্টই। এখন সবকিছুই নির্ভর করছে পগবার বর্তমান ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ওপর।