নেপালি ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগে স্পিকারের আহ্বান

রোববার ১৪০তম আইপিইউ এসেম্বলির মূল ভেন্যু কাতারের শেরাটন কনভেনশন সেন্টারে নেপালের স্পিকার Krishna Bahadur Mahara তার সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলে একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে বিদ্যুৎ খাত, ঔষধ ও তৈরি পোষাক খাত বিনিয়োগ বাণিজ্য প্রসারে ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপ গঠন করায় নেপালের স্পিকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন বাংলাদেশ দ্রুততম সময়ে সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপ গঠন করবে।

সাক্ষাৎকালে তাঁরা দ্বিপাক্ষিক সর্ম্পক, সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপ গঠন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং আন্তঃবাণিজ্যের প্রসার নিয়ে আলোচনা করেন।

শিরীন শারমিন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পরপরই বাঙালি জাতিকে যে সংবিধান উপহার দিয়েছেন তা অনন্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে দেশের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন। দেশের জিডিপি ৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশে নেমে এসেছে। বর্তমান সরকার সবার জন্য শিক্ষা এবং খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সামাজিক নিরাপত্তার বলয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনের মাধ্যমে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

নেপালের স্পিকার বলেন, বাংলাদেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। নেপাল বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাকে অনুসরণ করতে চায়। এক্ষেত্রে সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপের মাধ্যমে দু’দেশের সংসদ সদস্যগণ ধারণা ও অভিজ্ঞতা বিনিময় করে উপকৃত হতে পারবে। বাণিজ্য প্রসারে নেপালের ব্যবসায়ীগণ বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবেন মর্মে তিনি স্পিকারকে আশ্বস্ত করেন।

এসময় আবদুস সোবহান মিয়া এমপি, আব্দুস সালাম মুর্শেদী এমপি, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমদ খান এবং কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ উপস্থিত ছিলেন।