শীঘ্রই পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, সরকারি স্বাস্থ্যসেবার পরিধি ও মান বৃদ্ধি করে মাথাপিছু স্বাস্থ্য ব্যয় কমানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দেশের সরকারি হাসপাতালে নতুন চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। শীঘ্রই পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে।

রোববার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী একথা বলেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এসময় তিনি আরও বলেন, যথাযথ মানের যন্ত্রপাতি স্থাপন ও রক্ষণাবেক্ষণ, হাসপাতালের সম্প্রসারণ, পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি নতুন নতুন বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণের মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় আধুনিক স্বাস্থ্যসেবাকে আরো সহজলভ্য ও সুলভ করার কাজ শুরু করেছে সরকার।

তিনি বলেন, দেশের একজন মানুষও যেন মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার আওতার বাইরে না থাকে সেদিকে দৃষ্টি রেখে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মোঃ আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তাফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি, মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ বক্তৃতা করেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, দেশের প্রত্যেক মানুষের জন্য বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে দেশের সকল পর্যায়ের হাসপাতালে সেবার মান বাড়ানো হবে।

সরকারের উদ্যোগের সফল বাস্তবায়নের জন্য সকল স্তরের চিকিৎসক, নার্স-সহ কর্মকর্তা কর্মচারীদের কর্মস্থল থেকে নিষ্ঠার সাথে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকসহ বড় বড় বিশেষায়িত হাসপাতালে দেশের সাধারণ দরিদ্র মানুষেরা প্রায় বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছে। প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা ও সংক্রামক রোগ চিকিৎসায় বাংলাদেশের সাফল্য আজ সারা বিশ্বে প্রশংসিত। কিন্তু ক্যান্সার ও কিডনী রোগসহ কিছু কিছু অসংক্রামক রোগের উন্নত চিকিৎসার জন্য রোগীদেরকে বড় বড় বেসরকারি হাসপাতাল অথবা বিদেশে যেতে হচ্ছে। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে দেশের স্বাস্থ্য সেবাকে অসংক্রামক রোগ মোকাবেলার জন্য স্বয়ংসম্পূর্ণ করে গড়ে তোলা হবে।