মিয়ানমারের আন্তরিকতার অভাবে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হয়নি : স্পিকার

রোববার সন্ধ্যায় কাতারের দোহায় একটি হোটেলে কাজাখস্তান মজলিস অব পার্লামেন্টের চেয়ারম্যান Nurlan Nigmatulin এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় তারা রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসন এবং দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করেন।

স্পিকার বলেন, মাদার অব হিউম্যানিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিপুল সংখ্যক মায়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে এদেশে মানবিক কারণে আশ্রয় দিয়েছেন। ইতোমধ্যে ২ বছর পার হয়ে গেলেও রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ স্থায়ী প্রত্যাবর্তন সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে এ বিষয়ক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হলেও মিয়ানমারের আন্তরিকতার অভাবে এ সমস্যার সমাধান সম্ভব হয়নি।

রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে কাজাখস্থানের ভূমিকা ও সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বিভিন্ন পর্যায়ে সহযোগিতা বৃদ্ধি ও রোহিঙ্গা বিষয়ে আন্তর্জাতিক চাপ তৈরির মাধ্যমে এ সমস্যা সমাধান করতে কাজাখস্তানের প্রতি আহবান জানান স্পিকার।

বাংলাদেশের সাথে কাতারের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে উল্লেখ করে স্পিকার বলেন, সংসদ সদস্যদের মধ্য পারস্পরিক সফর ও অভিজ্ঞতা বিনিময় ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে বলেও তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

স্পিকার বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বে নারী ক্ষমতায়নের রোল মডেল। দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, সংসদ উপনেতা, বিরোধী দলের উপনতাও একজন নারী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাজাখস্তান সফর ছিল তাৎপর্যপূর্ণ। পারস্পরিক সফর বিনিময় দু-দেশের সম্পর্ককে আরো জোরদার করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী টানা তৃতীয়বারের মতো স্পিকার নির্বাচিত হওয়ায় কাজাখস্তান মজলিস অব পার্লামেন্টের চেয়ারম্যান তাকে অভিনন্দন জানান।

তিনি বাংলাদেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বাণিজ্য প্রসারে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবেন বলে স্পিকারকে আশ্বস্ত করেন। Nurlan Nigmatulin আগামী সেপ্টেম্বরে কাজাখস্তানে অনুষ্ঠিতব্য ইউরোপ-এশিয়া (ইউরোশিয়া) ইন্টার পার্লামেন্টারী সম্মেলনে স্পিকারকে অনুরোধ জানিয়ে আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ জানান।

এ সময় জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমদ খান এবং কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ উপস্থিত ছিলেন।