ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল , ২০২১ ● ৩০ চৈত্র ১৪২৭

যশোরে লকডাউনের তৃতীয় দিনে স্বাভাবিক চলাচল : স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খুলতে চায় ব্যবসায়ীরা

Published : Wednesday 07-April-2021 22:25:09 pm
এখন সময়: মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল , ২০২১ ০৮:৪৩:২৯ am

মিরাজুল কবীর টিটো : লকডাউনের তৃতীয় দিনে যশোরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাস চলাচল বন্ধ থাকলেও মানুষের চলাচল বেড়েছে। রিকসা ইজিবাইকের পাশাপাশি দলে দলে মানুষ রাস্তায় নামছে। পায়ে হেঁটে ঘোরাঘুরি করছে এদিক সেদিক। বাইরে ঘোরাঘুরি করতে আসা অনেকে বলছেন ‘তিন দিনেই হাফিয়ে উঠেছি, আর ঘরে থাকতে পারছি না।’

যথেচ্ছা বাইরে ঘুরলেও মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে। নিয়মানুযায়ী প্রশাসন তাদের দায়িত্ব পালন করেছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত সদরসহ চার উপজেলায় ২৪টি মামলায় ৯ হাজার ২শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। অপরদিকে ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে দোকান খোলার অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে।

বুধবার লকডাউনের তৃতীয় দিনে প্রথম দুইদিনের তুলনায় প্রশাসনের কড়াকড়ি ছিল কম। এ সুযোগে শহরে রিক্সা, ভ্যান ইজিবাইক চলাচল বেড়েছে।  মোটরসাইকেল চলছে ফ্রি স্টাইলে। ছোট ছোট যানবহন চলাচলে কোনো বাধা দেয়নি প্রশাসন।  শুধু বন্ধ ছিল শপিংমল, দোকান।

লকডাউনে স্বাস্থ্য বিধি না মানায়  সদর উপজেলাসহ চার উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালত স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ২৪টি মামলায় ৯ হাজার ২শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। এর মধ্যে সদর ১১টি মামলায় ২ হ্জাার ৭শ’ টাকা, অভয়নগরে ৬টি মামলায় চার হাজার টাকা, কেশবপুরে ৬টি মামলায় ২হাজার ৪শ’ টাকা ও শার্শায় ১টি মামলায় ১শ’ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

এদিকে সীমিত আকারে হলেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি চেয়ে গতকাল যশোরের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে যশোরের বড়বাজারের ব্যবসায়ীরা। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে বর্তমানে চলমান লকডাউন আমরা সরকারী নির্দেশনা মেনে চলছি। ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে শুরু হওয়া লকডাউনের ক্ষতি আমরা কেউ কাটিয়ে উঠতে পারেনি। এই মধ্যে আবার লকডাউনে ব্যবসায়ীরা চোখে অন্ধকার দেখছে। চলমান লকডাউনে সবকিছু খোলা রাখা হয়েছে শুধু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাদে। সবাই যদি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পারে তাহলে ব্যবসায়িরাও পারবে।

আগামী ঈদকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ধারদেনা করে মালামাল সংগ্রহ করেছে। তারা সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশনা মেনে প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রেখে এক অনিশ্চয়তার পথে চলছে।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন বড়বাজার ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি মীর মোশাররফ হোসেন বাবু, ছিট কাপড় ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান কবীর শিপলু, ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান, শাড়ি কাপড় ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি তন্ময় সাহা, সিটি প্লাজা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এস আর আজাদ।



আরও খবর