নববর্ষের রাতে উপশহরে গুলিতে কলেজছাত্র আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর উপশহরে নববর্ষের রাতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে গুরুতর আহত হয়েছে কলেজছাত্র সজীব হোসেন সুজন (২২)। সে উপশহর ডিগ্রি কলেজের অনার্স (ম্যানেজমেন্ট) ৩য় বর্ষের ছাত্র এবং একই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি। সে ওই এলাকার আসাদুল ইসলামের ছেলে। বর্তমানে সে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
সুজনের পক্ষের লোকজন জানান, গত সোমবার গভীর রাতে উপশহর বাবলাতলায় এলাকার ছেলেরা পিকনিক করার একপর্যায়ে গোলযোগ করতে থাকে। পাশেই সজীব হোসেন সুজনের বাড়ি। বিষয়টি জানতে পেরে সে গোলযোগ ঠেকাতে সেখানে যায়। এ সময় উপশহর বি-ব্লক এলাকার লাবলুর ছেলে তুহিন, ইমরান হোসেন ছাপ্পান ও তার ছেলে ইমো, এলাকার পিয়াস ও নান্নুসহ আরো কয়েকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে আচমকা তার ওপর চড়াও হয়। তারা তাকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। এসময় এক রাউন্ড গুলি সজীব হোসেন সুজনের পেটের বাম পাশে লাগে। আরেকটি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। স্থানীয় লোকজন দ্রুত তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।
তবে তুহিন জানিয়েছেন, উপশহর ডাকবাংলো এলাকায় তার ছেলেরা পিকনিকের আয়োজন করে। এখানে সুজনসহ তার লোকজন ইটের টুকরো ছুড়ে মারে। এর প্রতিবাদ করায় তারা আমাদের উপর চড়াও হয়। ওই সময় কে বা কারা গুলি ছোড়ে।
এ ব্যাপারে মঙ্গলবার বিকেলে কোতয়ালি মডেল থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা এসআই খবির হোসেন জানান, ঘটনার বিষয়ে থানায় কোন মামলা দায়ের হয়নি।
যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. এনকে আলম জানান, সুজনের অবস্থা আশংকাজনক। তাকে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।