কোহলিকে দুয়ো দেয়ায় অসিরাই এখন অসিদের ওপর খ্যাপা!

 স্পন্দন স্পোর্টস ডেস্ক : সিরিজ শুরুর আগে অনেকেই পরামর্শ দিয়েছিল বিরাট কোহলিকে খেপিও না। কিন্তু, ঘরে-বাইরের শুভাকাঙ্ক্ষিদের সেই পরামর্শ অস্ট্রেলিয়ানরা মানেনি। বরং সিরিজের শুরু থেকেই কোহলিকে টার্গেট বানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ানরা।

মাঠের লড়াইয়ে ক্রিকেটারদের স্লেজিং-যুদ্ধ তো আছেই, ভারত অধিনায়ককে মানসিকভাবে ঘায়েল করতে ব্যবহার করা হচ্ছে গ্যালারির দর্শকদেরও। অস্ট্রেলিয়ান সমর্থকরা দুয়ো দিয়ে যাচ্ছে কোহলিকে। প্রথম প্রথম সইলেও প্রতিপক্ষ দলের অধিনায়ককে ক্রমাগতভাবে দুয়ো দেয়ায় এবার অস্ট্রেলিয়ানরাই চটেছেন।

আর নিজ দেশের দর্শকদের ওপর চটে যাওয়াদের সেই দলে আছেন অস্ট্রেলিয়ান সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টস এবং ধারাভাষ্যকার টিম লিনরাও।

কোহলিকে দুয়ো দেয়ায় তিনজনেই কড়া ভাষায় সমালোচনা করেছেন নিজ দেশের দর্শকদের। ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ না করে বরং অতিথি হিসেবে কোহলিকে সম্মান জানানোর অনুরোধের আহ্বানও জানিয়েছেন তারা।

দুয়োতে যদি ফল মিলতো, তাহলেও কথা ছিল। কিন্তু, কোহলিকে খ্যাপানোর উল্টো ফলই হচ্ছে। প্রতিপক্ষ দলের দর্শকদের দুয়োয় কোহলি যেন আরও উজ্জীবিত। তার ব্যাট আরও বেশি হাসছে। কোহলির ভারতও অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সিরিজ জয়ের পথে।

৪ টেস্টের সিরিজে এরই মধ্যে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে সফরকারী ভারত। সিডনিতে সিরিজের চতুর্থ টেস্টেও চালকের আসনে তারা। মাঠের লড়াইয়ে তো বটেই; পাশাপাশি মাঠে আক্রমণাত্মক আচরণ করে কোহলি অস্ট্রেলিয়ানদের আরও বেশি খেপিয়ে তুলছেন। ফলশ্রুতিতে কোহলিকে দুয়ো দিয়েই যাচ্ছে গ্যালারির দর্শকরা।

অ্যাডিলেড, পার্থ, মেলবোর্নের পর সিডনিতেও দর্শকদের দুয়ো শুনতে হয়েছে কোহলিকে। গতকাল বৃহস্পতিবার কোহলি ব্যাটিংয়ে নামার সময় যেন দুয়োর গর্জন তোলেন দর্শকরা।

মাঠের লড়াইয়ে না পেরে প্রতিপক্ষ দলের অধিনায়কের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ কিছুতেই মানতে পারছেন না পন্টিংরা। নিজ দেশের দর্শকদের আচরণের সমালোচনা করে পন্টিং সরাসরিই বলেছেন, ‘সত্যিই যদি এটা দুয়ো হয়ে থাকে, তাহলে এটা খুবই লজ্জার ব্যাপার। পার্থ টেস্টেও এ নিয়ে আমি বলেছিলাম-কিছুটা সম্মান অন্তত দেখাও।’

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টসও দর্শকদের আচরণে একই রকম বিরক্ত। তিনি দর্শকদের আচরণ সংশোধনের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘এটা দেখতে মোটেও ভালো লাগেনি আমার। আমরা অস্ট্রেলিয়ানদের গর্বিত হতে বলি, জেতার কথা বলি। আশা করি, এটা সম্মানের সঙ্গে অর্জিত হবে। এ নিয়ে কোনো বিতর্কের সুযোগ নেই। আমি দর্শকদের বলব, খেলাটিকে সম্মানের সঙ্গেই সমর্থন করুন। এটা (সম্মান দেয়া) আমাদের চেয়ে বড়। সফরকারীদের সম্মান করুন। তাদের আমাদের দেশের সেরা অভিজ্ঞতা দিন। এই খেলাটির মূল ভিত্তিই হলো সম্মান। আশা করি, এখন থেকে আমরা সবাই সেটাই দেখতে পাব।’

অস্ট্রেলিয়ান ধারাভাষ্যকার টিম লিন শুনিয়েছেন আরও কড়া কথা, ‘আমি বলতে বাধ্য হচ্ছি, সে (কোহলি) মাঠে নামার সময় যে অভ্যর্থনা দেয়া হয়েছে, সেটা ছিল খুবই বাজে এবং নিম্নমানের। সে সফরকারী দলের অধিনায়ক। তাকে এভাবে স্বাগত জানানোটা নিচু মানসিকতার পরিচয় দেয়। সে তো ভুল কিছু করেনি। উচিতের চেয়ে একটু বেশিই ভালো খেলছে আর কি! জাতি হিসেবে আমাদের আরও ভালো হওয়া উচিত। এটা আমার মোটেও ভালো লাগেনি।’

দেখা যাক, পন্টিং, রবার্টস, টিম লিনদের এই সাবধান বাণী অসি সমর্থকদের দুয়োকাণ্ড থেকে দমিয়ে রাখতে পারে কি না।