এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী হচ্ছেন যশোরের স্বপন ভট্টাচার্য্য

এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী হচ্ছেন যশোরের স্বপন ভট্টাচার্য্য

যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্যকে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।

রোববার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম মন্ত্রিসভার নাম ঘোষণা করেন।

৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভায় ২৪ জন পূর্ণ মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী স্থান পাচ্ছেন।

আগামীকাল সোমবার বিকেলে তাদের শপথ পড়াবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

কেই এই স্বপন ভট্টাচার্য্য

স্বপন ভট্টাচার্য্য ১৯৫২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি উপজেলার পাড়ালা গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত ব্রাহ্মণ পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মৃত সুধীর ভট্টাচার্য্য ও মা মৃত ঊষা রানী ভট্টাচার্য্য’র চার ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে মেজ ছেলে তিনি।

স্বপন ভট্টাচার্য্য ছাত্রজীবনে ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও পরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িত হন। তার বড় ভাই পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য।

২০০৯ সালে মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন স্বপন ভট্টাচার্য্য। উপজেলাবাসীর কাছে নিজেকে একজন পরিচ্ছন্ন ও সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হন। রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি স্বরুপ শ্রেষ্ঠ উপজেলা উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী খান টিপু সুলতানকে পরাজিত করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন স্বপন ভট্টাচার্য্য।

দীর্ঘ ৩১ বছর পর মণিরামপুর থেকে স্বপন ভট্টাচার্য্য এলজিআরডি (স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়) মন্ত্রালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেলেন। এর আগে ১৯৮৮ সালে জাতীয় পার্টির শাসনামলে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান বর্তমান বিএনপির শরিক জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের সভাপতি মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস।

দীর্ঘদিন পর যশোর-৫ আসন থেকে স্বপন ভট্টাচার্য্য প্রতিমন্ত্রী হওয়ায় নির্বাচনী এলাকায় আনন্দের জোয়ার বইছে। দলের নেতাকর্মীদের ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে।

মনিরামপুর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অরুণ কুমার নন্দন বলেন, তিনি এখন শুধু মণিরামপুরের নন, তারপরও এ সংসদীয় আসনের সর্ব পর্যায়ে চলমান উন্নয়ন আরো বেগমান করবেন বলে প্রত্যাশা করছি।

মণিরামপুর ঢাকুরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ তাপস কুমার কুন্ডু বলেন, আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত ‘গ্রাম হবে শহর’ এর বাস্তবায়নে স্বপন ভট্টাচার্য্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে আশাবাদী।

মণিরামপুর উপজেলার আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন বলেন, স্বপন ভট্টাচার্য্যর প্রতিমন্ত্রী হওয়ার খবরে শুধু আওয়ামী লীগ পরিবার না। এ সংসদীয় আসনের সর্বস্তরের মানুষ এখন আনন্দে ভাসছে। একই সাথে তাকে প্রতিমন্ত্রী করায় আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।