রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে চিটাগংকে হারাল সিলেট

এর পরের বলেও তুলে মারেন, তবে এবার দুই রান হয়। পরের বলে আবার ছয়। মনে হচ্ছিল ম্যাচটা সিলেট সিক্সার্সের হাত ফসকে বেরিয়েই যাচ্ছে। কিন্তু শেষ দুই বলে মাত্র তিন রানই নিতে পারেন ফ্রাইলিংক। ফলে ৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সিলেট।

বুধবার দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেটের দেওয়া ১৬৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালোভাবেই এগুচ্ছিল চিটাগং। যদিও শুরুতেই ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদকে (৬) হারিয়ে ফেলে তারা। ক্যামেরন ডেলপোর্টকে নিয়ে মোহাম্মদ আশরাফুল সেই ধাক্কা সামলান।

কিন্তু ডেলপোর্ট রান আউটের শিকার হলে ৫৭ রানে থেমে যায় এই দুই জনের জুটি। তিনটি ছক্কা ও ৪টি চারে সাজিয়ে ২২ বলে ৩৮ রান করেন ডেলপোর্ট। ডেলপোর্টের বিদায়ের কিছুক্ষণ পর ফিরে যান আশরাফুলও (২২)।

চিটাগংয়ের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম এদিন বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেনি। ব্যক্তিগত ৫ রানে অলক কাপালীর বলে ক্যাচ তুলে ফিরে যান তিনি। দলীয় ৯৪ রানে কাপালীর দ্বিতীয় শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন মোসাদ্দেক হোসেন (৭)।

এরপর ফ্রাইলিংক ও সিকান্দার রাজার জুটি চিটাগংকে স্বপ্ন দেখায়। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিতে থাকেন তারা। কিন্তু সেখানে বাধ সাধেন তাসকিন আহমেদ। পরপর দুই বলে রাজা ও নাঈম হাসানকে ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ কেড়ে নেন চিটাগংয়ের কাছ থেকে।

ম্যাচের ১৮তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ২৮ বলে ৩৭ রান করেন রাজা। মেরেছে দুইটি করে ছক্কা ও চার। অন্যদিকে ফ্রাইলিংক ঝড়ো ব্যাটিং চালিয়ে যান। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হয়নি। তার ২৪ বলে ৪৪ রানের ইনিংস সত্ত্বে চিটাগং থেমে যায় ১৬৩ রানে। ৪টি ছক্কা ও একটি চারে সাজিয়েছেন ফ্রাইলিংক তার ইনিংসটি।

সিলেটের হয়ে ২৮ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন তাসকিন। এছাড়া দুইটি উইকেট নিয়েছেন কাপালী। ৩২ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন সিলেটের নিকোলাস পুরান।

এর আগে ডেভিড ওয়ার্নার, আফিফ হোসেন ধ্রুব ও পুরানের ব্যাটে ভর দিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান সংগ্রহ করে সিলেট।