ওয়ার্নারের বিদায়ী ম্যাচে রংপুরের জয়

এদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সাব্বির রহমান ও নিকোলাস পুরানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯৪ রান করে সিলেট। সাব্বির ৫১ বলে করেন ৮৫ রান। আর পুরান ২৭ বলে করেন অপরাজিত ৪৭ রান।

এদিকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ক্রিস গেইলকে (০) হারায় রংপুর। তাতে অবশ্য দমে যায়নি তারা। অ্যালেক্স হেলসকে নিয়ে রিলে রুশো দলকে টেনে নিয়ে যান দারুণ ভাবে।

দলীয় ৬৩ রানে অলক কাপালীর বলে আউট হয়ে যান হেলস। ২টি করে ছক্কা ও চারে সাজিয়ে ২৪ বলে ৩৩ রান করেছেন তিনি। এরপর রুশোর সাথে যোগ দেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। রংপুরের হয়ে প্রথম দিন মাঠে নেমেই মাতিয়ে তোলেন ‘মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রি’ খ্যাত এই প্রোটিয়া। দুইজন মিলে রংপুরের স্কোরে দ্রুত রান তুলেতে থাকেন। ফলে ক্রমেই কমতে থাকে তাদের আস্কিং রানরেট।

তবে ইনিংসের ১৪তম ওভারে সিলেটকে আশা দেখান তাসকিন আহমেদ। ওই ওভারেই রুশো ও ডি ভিলিয়ার্সকে আউট করেন তিনি। ৩৫ বলে ৬১ রান করেছেন রুশো। মেরেছে ২টি ছক্কা ও ৯টি চার। অন্যদিকে ডি ভিলিয়ার্স ২টি করে ছক্কা ও চারে সাজিয়ে ২১ বলে করেছেন ৩৪ রান।

জয় পেতে মরিয়া রংপুর তাসকিনের এ ধাক্কা কাটিয়ে ওঠে দ্রুতই। মোহাম্মদ মিঠুন ও নাহিদুল ইসলাম এসেও মারমুখি খেলতে থাকেন। এই দুই জনকেও বিদায় করেন তাসকিন। মিঠুন ১০ বলে ১৪ ও নাহিদুল ১৬ বলে ১৯ রান করে আউট হন।

এরপর অধিনায়ক মাশরাফিকে নিয়ে বাকি কাজটা সারেন ফরহাদ রেজা। একটি ছক্কা ও ২টি চারে মিলিয়ে ৬ বলে অপরাজিত ১৮ রান করে দলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি। অন্যপ্রান্তে মাশরাফি অপরাজিত থাকেন ৫ রানে।

সিলেটের হয়ে ৪২ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন তাসকিন।