১৭ ঘণ্টা পর খুলনার সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ চালু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের কোটাচাঁদপুর রেলস্টেশনের অদূরে ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার ১৭ ঘণ্টা পর খুলনান সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সেখানে থাকা বিভাগীয় রেলওয়ে পরিবহন কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন।

তিনি জানান, এ ঘটনায় রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের বিভাগীয় রেল ম্যানেজার নাজমুল হককে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামি তিন কর্ম দিবসের মধ্যে ঘটনার রিপোর্ট জমা দেওয়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ঘটনার পর শুক্রবার রাতেই তিনটি ট্রেনের যাত্রা বাতিল ঘোষণা করে কর্তপক্ষ। এদিকে দুর্ঘটনার উভয়পাশে দাড়িয়ে থাকা ট্রেনের শত শত যাত্রী বিকল্প পথে চলে গেছে। অনেকে উপায় না পেয়ে গাড়ির মধ্যেই রাত কাটিয়েছে। ফলে চরম দুর্ভোগের শিকার হন এসব যাত্রীরা।

এদিকে যাত্রীদের নিরাপত্তায় রাতে স্টেশনগুলোতে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

লাইনচ্যুত হওয়া ১০৮ টন ওজনের রেল ইঞ্জিনটি উদ্ধার করতে রাত ১১টার দিকে ঈশ্বরদী থেকে ৯৫ টন ক্ষমতা সম্পন্ন একটি রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এর ঠিক এক ঘণ্টা পর খুলনা থেকে ৬৬ টন ক্ষমতা সম্পন্ন আরো একটি রিলিফ ট্রেন পৌছে উদ্ধার কাজ শুরু করে।

ঘটনাস্থলে থাকা বিভাগীয় রেলওয়ে পরিবহন কর্মকর্তা ও তদন্ত কমিটির সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন রেললাইনে ত্রুটি না কি পয়েন্টিং এর ত্রুটির জন্য দুর্ঘটনাটি ঘটেছে তার বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সুন্দরবন এক্সপ্রেস-৭২৬ ডাউন ট্রেনটি ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর স্টেশনে প্রবেশের আগেই পয়েন্ট ইয়ার্ডে ইঞ্জিনসহ একটি বগি লাইনচ্যুত হয়। এতে সারা দেশের সাথে খুলনার রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে।

যাত্রা বাতিল করা ট্রেনগুলো হলো খুলনা থেকে ঢাকাগামি সুন্দরবন আপ-৭২৫ এবং ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সুন্দরবন ডাউন-৭২৬ এক্সপ্রেস। এছাড়া খুলনা থেকে ছেড়ে যাওয়া চিলাহাটিগামি সীমান্ত আপ-৭৪৭ এক্সপ্রেস ট্রেনটি আলমডাঙ্গা পর্যন্ত যাত্রা বাতিল করা হয়েছে।

অন্যদিকে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা স্টেশনে দাড়িয়ে থাকা সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটি সেখান থেকে আবার চিলাহাটি ফিরে যাবে বলে জানিয়েছে মোরারকগঞ্জ রেলস্টেশন মাস্টার নজরুল ইসলাম।