মিয়ানমারে পুলিশ ভ্যানে আরসার হামলা!

স্পন্দন আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
মিয়ানমারে পুলিশ ভ্যানে আরসার হামলা!

মিয়ানমারের একটি পুলিশভ্যানে অতর্কিত হামলা চালিয়েছে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। এতে কর্নেল পদবির এক কর্মকর্তাসহ ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ।

তবে হামলার ঘটনাটি ১৬ জানুয়ারি (বুধবার) ঘটলেও গতকাল শনিবার (১৯ জানুয়ারি) কর্তৃপক্ষ তা প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম দ্য ইরাওয়াদ্দি ডটকম।

খবরে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম মিয়ানমার রেডিও ও টেলিভিশন (এমআরটিভি) শনিবার জানিয়েছে, মংডু শহরের কাছে ওয়াট কেইন গ্রামে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বহনকারী একটি ভ্যানে ওই হামলা চালানো হয়। সরকার বলছে, আরসা ওই হামলা চালিয়েছে।

এর আগে ২০১৭ সালে আরসা দেশটির কয়েকটি পুলিশ পোস্টে হামলা চালায় বলে দাবি করে নেইপিদো। এর জের হিসেবে উত্তর রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর সাঁড়াশি অভিযান চালায় মিয়ানমার আর্মি। ভয়বহ ওই অভিযানের শিকার হয়ে সাড়ে ৭ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

ইরাওয়াদ্দি বলছে, সরকারের দাবি অনুযায়ী হামলার ঘটনা কয়েক দিন আগের, কিন্তু এ সংক্রান্ত একটি শর্ট ভিডিও, যা ঘটনাস্থলে ধারণ করা, অনলাইনে ভাইরাল হওয়ার পরই তা স্বীকার করা হলো। ওই ভিডিওতে ঘটনার তারিখ ও আরসার লোগো রয়েছে।

মাস্ক পরা সুসজ্জিত কয়েকজন একে-৪৭ বন্দুক দিয়ে পুলিশভ্যানে গুলি করছে- এমন ভিডিওটি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে। হামলাকারীরা বলছে, ‘আমাদের আরসা সৃষ্টিকর্তার নির্দেশ অনুযায়ী হামলা চালিয়েছে, ১৬ জানুয়ারি ২০১৯।’

সংবাদ মাধ্যমটি আরো বলছে, আরসার হামলার কথা প্রকাশের আগে (একই দিন) মিয়ানমার পুলিশ তাদের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে দাবি করে, একই এলাকায় আরাকান আর্মি, আরাকানের বিদ্রোহী গ্রুপ, হামলা চালিয়েছে। কিন্তু পরে সে পোস্টটি অপসারণ করা হয়।

এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে ইরাওয়াদ্দি।