মণিরামপুরে গৃহবধূকে অপহরণ করে হত্যা ও গুমের অভিযোগে আদালতে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর মণিরামপুরের শয়লা গ্রামের গৃহবধূ ইতি খাতুনকে অপহরণ হত্যা ও গুমের অভিযোগে স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়িসহ ৬ জনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। সোমবার অপহৃত ইতি খাতুনের পিতা মোবারকপুর গ্রামের বাসিন্দা আতিয়ার রহমান কাগজী বাদী হয়ে আদালতে এ মামলা করেছেন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক নুসরাত জাবীন নিম্মী অভিযোগটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলো অপহৃত ইতি খাতুনের স্বামী শয়লা গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মামুন, শ্বশুর আজিজুর রহমান, শাশুড়ি ফরিদা বেগম, চাচা শ্বশুর সাইফুল ইসলাম, মৃত ইমান গাজীর ছেলে আব্দুল খালেক ও মৃত জহুর গাজীর ছেলে মাসুদুর রহমান।
মামলার অভিযোগে জানাগেছে, আড়াই বছর আগে আসামি আব্দুল্লাহ মোবারকপুর গ্রামের আতিয়ার রহমান কাগজীর মেয়ে ইতি খাতুনকে বিয়ে করে। বিয়ের সময়ে দাবিকৃত যৌতুকের ১ লাখ টাকাসহ আরও ১ লাখ টাকার মালামাল দেয়া হয়। এরপর আসামিরা ইতির কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে মানসিক ও শারিরিক নির্যাতন করে। গত ২৬ ডিসেম্বর আসামিরা ইতি খাতুনের কাছে যৌতুকের টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ইতি খাতুনকে বাড়ি থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ সংবাদ জানতে পেরে ইতি খাতুনের পরিবারের সদস্যরা অনেক খোঁজাখুজি করে তাকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়। ধারণা করা হচ্ছে আসামি যৌতুকের টাকা না পেয়ে ইতি খাতুনকে অপহরণ করে হত্যার পর গুম করে রেখেছে। স্থানীয়ভাবে মিমাংসায় ব্যর্থ হয়ে গতকাল তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।