যবিপ্রবি’র ছাত্র অপহরণ ! প্রেমিকার সাথে গল্প করার সুযোগ নেয় দুর্বৃত্তরা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ছাত্র সালেক খান শহরের সার্কিট হাউস রোডে প্রেমিকার সাথে গল্প করার সুযোগ নেয় দুর্বৃত্তরা। তাকে অপহরণ করে ৫ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করে তারা। এঘটনার সাথে কারা জড়িত খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে বলে জানায় পুলিশ। তবে এঘটনায় কোন লিখিত অভিযোগ করেননি ওই ছাত্র।
পুলিশের একটি সূত্র জানায়, যবিপ্রবি’র ছাত্র সালেক খান গত রোববার রাত আটটার দিকে সার্কিট হাউস রোডে প্রেমিকার সাথে গল্প করছিলেন। প্রেমিকাকে এক সময় তিনি প্রাইভেট পড়াতেন। রাতে তাদের এভাবে হেঁটে গল্প করতে দেখে ১৫-২০ জন দুর্বৃত্ত সেখানে গিয়ে আচমকা সালেক খানের ওপর চড়াও হয়। তারা জোরপূর্বক সালেক খানকে ধরে এমএম কলেজ মাঠে নিয়ে যায়। এরপর তারা তার কাছে ৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। কাছে ওই পরিমাণ টাকা না থাকায় সালেক খান পরিচিত এক ছাত্রকে বিকাশের মাধ্যমে তাকে ৫ হাজার টাকা দিতে বলেন। ওই ছাত্র বিকাশ করলে ৫ হাজার টাকা উত্তোলন করে সালেক খান দুবর্ৃৃত্তদের চাঁদা পরিশোধ করেন।
সূত্র জানায়, সালেক খান বিকাশে টাকা চাওয়ায় যবিপ্রবি’র পরিচিত ছাত্রের সন্দেহ হয়। এরপর রাতেই যবিপ্রবি’র বেশ কয়েকজন ছাত্র কোতয়ালি মডেল থানায় গিয়ে সালেক খানকে কেউ অপহরণ করে চাঁদা দাবি করছে বলে অভিযোগ করেন।
থানা পুলিশের এসআই নুর ইসলাম জানান, যে বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠানো হয়েছিলো সেটি ট্র্যাকিং করে রাত সাড়ে ৯টার দিকে সালেক খানকে উদ্ধার করা হয়। এমএম কলেজের মাঠে তাকে পাওয়া গিয়েছিলো। কারা তাকে ধরে নিয়ে চাঁদা আদায় করেছে তাদের নাম বলতে পারেননি সালেক খান। তবে এঘটনার সাথে কারা জড়িত তার খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গত সোমবার প্রকাশিত এ সংক্রান্ত সংবাদে যবিপ্রবি’র ছাত্র খালেক খান লেখা হয়েছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে সালেক খান হবে। তার বাড়ি পাবনায়। তিনি যবিপ্রবি’র হোস্টেলে থাকেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।