সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে আত্মহত্যা বিষয়ক কর্মশালা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : বাংলাদেশে আত্মহত্যার প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০১৭ সালে দেশে মোট আত্মহননকারীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজারের কিছু বেশি। ২০১৮ সালে দাঁড়ায় ১১ হাজারে। জাপানে এক সময় আত্মহত্যার প্রবণতা অনেক বেশি থাকলেও এখন তা কমে এসেছে। অথচ আমাদের দেশে নানা সামাজিক কারণে এ প্রবণতা বেড়েই চলেছে।

সোমবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে আত্মহত্যা বিষয়ক এক কর্মশালায় এ তথ্য প্রকাশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানের সহকারী অধ্যাপক মো. সেলিম চৌধুরী।

বাংলাদেশ পুলিশ ও ইউনিসেফের জরিপে এ তথ্য পাওয়া গেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ অবস্থা থেকে আমাদের সন্তানদের রক্ষা করতে হবে। আর এজন্য নিতে হবে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ।

তিনি বলেন, কেনো এতো আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে তা খতিয়ে দেখতে উদ্যোগী হতে হবে।

তবে কর্মশালায় সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমান জানান, জেলায় ২০১৮ সালে ২৭৪টি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে ২০১৭ সালে এ সংখ্যা ছিল ৩০৬ জন।

‘অনীকদের জন্য উদ্যোগ’ শীর্ষক কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন এনটিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি সুভাষ চৌধুরী।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন তালা কলারোয়া আসনের সংসদ সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক অনিন্দিতা রায় , সাতক্ষীরা জেলা শিক্ষা অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর আবদুল খালেক, প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাংবাদিক হাফিজুর রহমান মাসুম প্রমুখ।

কর্মশালায় জেলার বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী ছাড়াও জনপ্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

কর্মশালায় আরো বলা হয় কেনো এতো আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে তা খতিয়ে দেখা দরকার। অভিভাবকের আচরণ, শিক্ষাব্যবস্থা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, লিঙ্গবৈষম্য, সামাজিক অবক্ষয় নাকি অন্য কিছু তা তলিয়ে দেখার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলা হয় এর থেকে পরিত্রাণের পথ খুঁজতে হবে।

আমাদের শিশুরা নানা কারণে বিষণ্নতা ও আশাহীনতায় ভোগে জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, শিশু-কিশোররা মাদকের দিকে ঝুঁকছে কিনা তা দেখতে হবে।