সাভারে ৭ নারী ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার

সাভার প্রতিনিধি :

ঢাকার সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে গেন্ডা বাসস্টান্ডের সামনে থেকে ছিনতাইকালে ৭ নারীকে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।

সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার ৭ নারীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৩/৪সহ সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত নারী ছিনতাইকারীরা হলেন বি-বাড়িয়া জেলার ডরমণ্ডল গ্রামের নুর ইসলামের মেয়ে মারুফা বেগম (৩২),  নুর মিয়ার স্ত্রী ফরিদা খাতুন (৪০),  সোহেল মিয়ার স্ত্রী কমলা বেগম (২৬),  জামালের স্ত্রী জামেলা খাতুন (৩৭),  আলামীনের স্ত্রী মায়ারুন নেছা (২৬),  আবু মিয়া স্ত্রী মিতু বেগম (৩৭),  আব্দুল আলীমের স্ত্রী বানেছা বেগম (৪৫) ।

সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে সাদাপুর পুরান বাড়ির এলাকার বাসিন্দার সাইফুল খানের স্ত্রী শেফালী আক্তার গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড থেকে উলাইল যাওয়ার উদ্দেশ্য লেগুনা পরিবহনের ওঠার চেষ্টা করে। ১০/১২ জনের একটি নারী ছিনতাইকারী দল শেফালি আক্তারকে গতিরোধ করে লেগুনায় ওঠার কৌশল তৈরি করে শেফালী আক্তারের গলা থেকে স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। পরে বিষয়টি পথচারীরা আঁচ করতে পেয়ে নারী ছিনতাইকারীদলটিকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। পরে সাভার মডেল থানার পুলিশে খবর দেয়া হলে এসআই আবিদ হোসেন নেতৃত্বে সঙ্গী ফোর্স নিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

ছিনতাইকারীদের কবলে পড়া শেফালী আক্তার বলেন, আমি উলাইল যাওয়া জন্য গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড থেকে  গাড়িতে ওঠার চেষ্টা করি। এসময় ১০/১২ জন নারী আমাকে ঘিরে ধরে গাড়িতে উঠতে বাঁধা দেয়। পরে তাদের মধ্যে একজন আমার গলায় থাকা দেড় ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইনটি ছিনিয়ে নিয়ে দৌড় দেয়। পরে আমার চিৎকারে পথচারীরা এগিয়ে এসে তাদেরকে হাতেনাতে ধরে ফেলে পুলিশে সোপর্দ করে।

এর আগে তাদের বেধড়ক মারধর করা হয়। পরে পুলিশ তাগের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন।