ডুমুরিয়ায় বহুল আলোচিত সেই ইট ভাটা অবশেষে উচ্ছেদ

ডুমুরিয়া (খুলনা) সংবাদদাতা>
অবশেষে ডুমুরিয়ার বহুল আলোচিত ভদ্রানদী গর্ভে বেআইনি ভাবে গড়ে উঠা এবি-১ ইট ভাটাটি গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন। বুধবার বিকালে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন।
গত অর্থ বছরে ডুমুরিয়ার ভদ্রানদী খনন প্রকল্পের কাজ হলে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক নদী গর্ভে থাকা প্রায় ৬ শতাধিক ভূমিহীন পরিবারের ঘর-বাড়ি ও দুটি ইটভাটা স্ব-স্ব উদ্যোগে স্থাপনা সরিয়ে নেয়। কিন্তু উপজেলার খর্ণিয়া-শোভনার তেলিগাতি নামক স্থানে নদী গর্ভে থাকা জিএম হাফিজুর রহমানের এবি-১ নামক একটি ইটভাটা অজ্ঞাত কারণে থেকে যায়। এতে এলাকাবাসির মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
জেলা প্রশাসকের নির্দেশে গতকাল নির্বাহী ম্যাজিস্টে্েরটর নেতৃতে ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস নিয়ে ভাটাটি উচ্ছেদ করা হয়। বিতর্কিত ওই ভাটাটি বাঁচানোর জন্য নদীর একপাশ দিয়ে চেপে বেশী খনন করা হচ্ছিলো বলেও অভিযোগ ওঠে। আর এতে সাধারন ভূমিহীনদের একমাত্র সম্বল একখন্ড জমি বিলিন হয়ে যাচ্ছিলো নদীগর্ভে। উচ্ছেদ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ড’র উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ মিজানুর রহমান, উপজেলা পল্লীবিদ্যুৎ’র জোনাল অফিসার মোঃ আব্দুল মতিন, উপজেলা ফরেষ্টার মোঃ ফুরকানুল আলম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ হাসনাতুজ্জামান, উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন। অপরদিকে একই দিনে ওই নদীগর্ভে অবৈধভাবে নির্মিত উদয় চক্রবর্ত্তী নামের এক ব্যক্তির একটি পাকা ঘরও উচ্ছেদ করা হয়।