যশোরে গড়াইয়ের ধাক্কায় রাস্তা নির্মাণ শ্রমিক আহত : প্রতিবাদে বাস ভাঙচুর, চালক আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক>
রাস্তা নির্মাণ কাজের শ্রমিককে চাপা দেয়ার অভিযোগে খুলনা থেকে কুষ্টিয়াগামী গড়াই পরিবহনের চালক রিন্টু শেখকে (৬৫) আটক করছে যশোর কোতয়ালি থানা পুলিশ। তিনি কুষ্টিয়া সদর উপজেলার চৌরহাস গ্রামের সিদ্দিক শেখের ছেলে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের ধর্মতলা মোড়ে ঘটনাটি ঘটে। বাস চাপা দেয়ায় বিক্ষুদ্ধ লোকজন এবং অন্যান্য শ্রমিক বাসটি ভাঙচুর করে। পুলিশ বাসটি আটক করে পুলিশ লাইনে রেখেছে বলে জানাগেছে।
কোতয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) সমির কুমার সরকার জানিয়েছেন, দুপুরে যশোর থেকে গড়াই পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকামেট্টো-ব-০২-০০১৪) যশোরের ধর্মতলার মোড়ে পৌছায়। সেখানে রাস্তায় কাজ হওয়ায় একজন শ্রমিক ফ্লাগ উচিয়ে থামতে বলে। কিন্তু চালক না থেমে সেখানে অপর একটি গাড়িকে ওভারটেক করতে যায়। সে সময় ওই শ্রমিককে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি জখম হন। পরে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে এসে ওই শ্রমিককে রক্ষা করে দ্রুত হাসপাতালে পাঠান।
এদিকে এলাকার লোকজন বাসটি আটকে রাখে। সে সময় খবর পেয়ে পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির কতিপয় নেতা সেখানে যান এবং উল্টো রাস্তা নির্মাণ শ্রমিকদের থমক দেন। এই দেখে আশেপাশের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে বাসের কয়েকটি গ্লাস ভাঙচুর করে। সেখানে পুলিশ পৌছালে পরিবহন শ্রমিকরা পুলিশের সামনে নির্মাণ শ্রমিকদের ধমক দেন। পরে পুলিশ বাসচালককে আটক করে এবং বাসটি জব্দ করে পুলিশ লাইনে রাখে। এই ঘটনায় আহত শ্রমিকের পক্ষে একটি লিখিত অভিযোগ দেয়ার কথা রয়েছে বলে তিনি জানান।
এই বিষয়ে বাসের সুপারভাইজার কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়া গ্রামের পিন্টু জানিয়েছেন, রাস্তায় গাড়ি ওভারটেক করার সময় চলন্ত গাড়ির সামনে ব্যারিকেড দেয় ওই রাস্তা নির্মাণ শ্রমিক। এতে তার সামান্য ধাক্কা লাগে। গাড়ির লোকজন তাকে রক্ষা করে ক্ষমা চান। কিন্তু অন্যান্য শ্রমিক বিক্ষুব্ধ হয়ে বাসের ডানপাশের সকল জানালার গ্লাস ভেঙ্গে দেয়। এবং উল্টো চালককে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ।
এ বিষয়ে পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির সহসভাপতি ষষ্ঠি কুমার দত্ত জানিয়েছেন, তিনি সংবাদ পেয়ে ধর্মতলায় গিয়েছিলেন। সেখানে রাস্তার নির্মাণ শ্রমিকদের কোন রকম হুমকি ধামকি দেয়া হয়নি। ওই শ্রমিকের সামান্য লেগেছে। এতেই তারা বাস ভাঙচুর করে তা আটক করেছে।