ডুমুরিয়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩৩জন সম্ভাব্য প্রার্থী মাঠে

সুব্রত কুমার ফৌজদার, ডুমুরিয়া>
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর এবার দেশব্যাপী আলোচিত হয়ে উঠেছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতিমধ্যে খুলনা জেলার বৃহত্তর ডুমুরিয়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। এ উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এখানে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩৩ জন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। জনপ্রিয় সাবেক দুই উপজেলা চেয়ারম্যানের মৃত্যুর কারণে ভোটের মাঠে নতুন মুখের ছড়াছড়ি ঘটেছে। তবে আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্কাসপার্টি ছাড়া বিএনপি বা অন্যকোনো দলের প্রার্থীদের আগ্রহ এখন পর্যন্ত দেখা যায়নি। সম্ভাব্য এসব প্রার্থী গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ার কারণে ইতিমধ্যে রাজনৈতিক দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।
জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর অনেকটা ভালো অবস্থানে আছে আওয়ামী লীগ। সম্ভাব্য প্রার্থীরা আশায় আছে দলীয় মনোনয়ন পেলে জয় নিশ্চিত। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সামান্য ভোটের ব্যবধানে এই আসনে বিএনপির প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয় আওয়ামী লীগ। সে কারণে এবার আওয়ামী লীগ হারানো আসনটি ফিরে পেতে ব্যাপক তৎপর। দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার প্রভাবে আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাই এবার উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক। অনেকেই মনোনয়ন নিশ্চিত করতে ধর্না দিচ্ছেন স্থানীয় সংসদ সদস্যের দুয়ারে। আবার অনেকে দলের হাইকমান্ডের কাছে জোর লবিং শুরু করেছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রতিদিন দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় ও কুশল বিনিময় করে যাচ্ছেন।
ডুমুরিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩৩ জন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। এরা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নুর উদ্দিন আল মাসুদ, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব সরদার ইলিয়াস হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি রুদাঘরা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল খোকন, গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা সরোয়ার, সমাজসেবক নির্মল চন্দ্র বৈরাগী, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম শফিকুল ইসলাম, আটলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. প্রতাপ রায়, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মরহুম গাজী আব্দুল হাদির ছেলে গাজী এজাজ আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি শাহনেওয়াজ হোসেন জোয়াদ্দার, জেলা পরিষদের সদস্য সরদার আবু সালেহ, ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সেলিম আক্তার স্বপন, ডুমুরিয়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী হুমায়ুন কবির বুলু, শোভনা ইউপি চেয়ারম্যান সুরঞ্জিত বৈদ্য, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সরদার আব্দুল গনি, সাবেক ছাত্রনেতা কাজী আলমগীর, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, শেখ নাজিবুর রহমান নাজু, নুর ইসলাম বাদশা ও চৈতালী হালদার।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক প্রভাষক গোবিন্দ ঘোষ, প্রভাষক গৌর চন্দ্র ঢালী, প্রকাশ চন্দ্র বিশ্বাস, সাংবাদিক এমএ এরশাদ, সাংবাদিক আব্দুল লতিফ মোড়ল, সাংবাদিক সুমন ব্রহ্ম, কাজী আব্দুল মজিদ ও গুটুদিয়া ইউপি সদস্য সরদার মাসুদ রানার নাম রয়েছে আলোচনায়।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন তহমিনা বেগম, শিলা রানী মন্ডল, বিভা বিশ্বাস, মাকসুদা আকতার রাখী, শিমু আক্তার, সারমিনা জমাদ্দার রুমা ও হাসনা হেনা।