যশোরে প্রতারণা মামলায় ২বছর সশ্রম কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে প্রতারণা মামলায় সঞ্জয় ব্যানার্জি নামে এক ব্যক্তিকে ২বছর সশ্রম কারাদন্ড ও অর্থদন্ড দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক নুসরাত জাবীন নিম্মী এক রায়ে এ সাজা দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত সঞ্জয় ব্যানার্জি মণিরামপুরের বাজিতপুর গ্রামের মৃত লাল বিহারী ব্যানার্জির ছেলে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি আসামি সঞ্জয় ব্যানার্জির পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত ৪৯ শতক জমির মধ্যে ৪২ শতক জমি শ্যামনগর গ্রামের বাসুদেব বর্মণ ও তার ভাই ক্রয় করেন। একই দাগে সঞ্জয়ের আরও ৭ শতক জমি থেকে যায়। পরবর্তীতে সঞ্জয় গোপনে তার ভাইয়ের জমির সাথে ৭ শতক জমির মধ্যে ২ শতক বিক্রি করে দেন। সঞ্জয় ব্যানার্জি তার বাকি জমি বিক্রির জন্য বাসুদেব বর্মণকে প্রস্তাব দেন। বাসুদেব বর্মণ ২৯ মে ওই ৭ শতক জমি তার কাছ থেকে ক্রয় করেন। এ জমি দখল নিতে গেলে একই এলাকার সুবল বিশ্বাস ২ শতক তার কাছ থেকে আগেই ক্রয় করেছেন বলে দলিল দেখান। এ সময় সঞ্জয় ২ শতক জমির টাকা ফেরত না দিয়ে ঘোরাতে থাকেন। সঞ্জয় প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে একই জমি দুইবার বিক্রির অভিযোগে বাসুদেব বর্মণ ২০১৩ সালের ১২ জুন আদালতে মামলা করেন। এ মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামি সঞ্জয় ব্যানার্জির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে ২ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত সঞ্জয় ব্যানার্জি কারাগারে আছে।