ভোটার যত সচেতন হবে নির্বাচন তত সুষ্ঠু হবে: রাষ্ট্রপতি

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :অধিকার ও দায়িত্ব সম্পর্কে ভোটারদের সচেতনতা বাড়াতে নির্বাচন কমিশনকে আরও উদ্যোগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

শুক্রবার নির্বাচন কমিশনের আয়োজনে ভোটার দিবসের অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি বলেন, “ভোটার যত বেশি সচেতন হবে নির্বাচনও তত সুষ্ঠু হবে।”

প্রতিবছর ১ মার্চ থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু করতে চায় নির্বাচন কমিশন। তবে এবার উপজেলা নির্বাচন থাকায় ১ এপ্রিল থেকে এই কার্যক্রম শুরু হবে। ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় ভোটারযোগ্য নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহে বাড়ি বাড়ি যাবে ইসির সংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহকারীরা।

নির্বাচন ভবনের অডিটোরিয়ামে এ অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি বলেন, “আমি জেনে খুশি হয়েছি, নির্বাচন ব্যবস্থায় আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ভোটার তালিকাভুক্তকরণে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে শীর্ষে অবস্থান করছে। ভোটার তালিকাভুক্তরণের সাথে সাথে ভোটারদের অধিকার ও দায়িত্ব সম্পর্কেও সচেতন করে তুলতে হবে।”

উন্নয়নের জন্য দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্বের বিকল্প নেই মন্তব্য করে আবদুল হামিদ বলেন, তৃণমূল থেকে শুরু করে জাতীয় পর্যায় পর্যন্ত প্রতিটি স্তরে যোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচিত করতে হবে। আর নেতৃত্ব নির্বাচনের সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতি হচ্ছে ভোট।

“নির্বাচন অনুষ্ঠানের সাংবিধানিক দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের হলেও নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে হলে দলমত নির্বিশেষে সকলকেই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। মুখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে ভোটারদের।”

রাষ্ট্রপতি বলেন, “এ প্রেক্ষাপটে জাতীয় ভোটার দিবস পালন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই এ দিবসটিকে আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে তৃণমূল পর্যায়ে যথাযথভাবে পালন করা হলে দেশের গণতান্ত্রিক সংস্কৃতিতে ইতিবাচক সাড়া পড়বে।

“আমি আশা করব, দেশের সকল রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এ লক্ষ্যে কায©কর ভূমিকা রাখবে। তাহলেই দেশে দোষারোপের রাজনীতির পরিবর্তে শান্তি, সৌহার্দ, সহমর্মিতা ও পরমত সহিষ্ণুতার রাজনৈতিক সংস্কৃতি গড়ে উঠবে। গণতন্ত্র ও উন্নয়ন এগিয়ে যাবে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে।”

কয়েকটি দেশে প্রবাসীদেরও ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ রয়েছে জানিয়ে রাষ্ট্রপতি প্রবাসী বাংলাদেশিদেরও এই সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রায় এক কোটি মানুষ বিদেশে অবস্থান করছেন এবং তারা বৈদেশিক মুদ্রা পাঠিয়ে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন।

“কিন্তু এদের অনেকেরই জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। প্রবাসে বসবাসরত বাংলাদেশিরা যাতে জাতীয় পরিচয়পত্র পেতে পারেন, তার বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। এটা সম্ভব হলে প্রবাসীদের নাগরিকত্বসহ তাদের রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্তি সহজ হবে।”

প্রাপ্তবয়স্ক সকল নাগরিককে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে নির্বাচন কমিশনকে বছরব্যাপী বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপ্রধান আবদুল হামিদ। সেইসঙ্গে দুর্গম হাওর, চরাঞ্চল এবং পাহাড়ী অঞ্চলের নাগরিকগণের জন্য বিশেষ কার্যক্রম গ্রহণে করতে বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরূল হদার সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম ও ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বক্তব্য দেন।