এফআর টাওয়ারের আগুনে গেল যাদের প্রাণ

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারের আগুনে এখন পর্যন্ত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ২৪ জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার পুলিশের পক্ষ থেকে নিহতদের নাম-ঠিকানা জানানো হয়েছে। তারা হলেন—১. সৈয়দা আমিনা ইয়াসমিন (৪৮)। বাবা সৈয়দ মহিউদ্দিন আহমেদ। জেলা মৌলভীবাজার।

২. মোহাম্মদ মনির হোসেন সরদার (৫২)। বাবা মৃত মোতাহর হোসেন সরদার, জেলা বরিশাল।

৩. মোহাম্মদ মাকসুদুর রহমান (৩২)। বাবা মৃত মিজানুর রহমান, জেলা।

৪. মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন (৪০)। বাবা মৃত আলহাজ আবুল, জেলা দিনাজপুর।

৫. মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান (৩৬)। বাবা মৃত আব্দুর রশিদ, জেলা রংপুর।

৬. মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। জেলা, খুলনা।

৭. ফ্লোরিডা খানম পলি (৪৫)। স্বামী ইউসুফ ওসমান, জেলা ঢাকা।

৮. আতাউর রহমান (৬২)। বাবা হাবিবুর রহমান, জেলা ঢাকা।

৯. মোহাম্মদ রেজাউল করিম রাজু (৪০)। বাবা নাজমুল হাসান, মা তহুরা বেগম, জেলা চাঁদপুর।

১০. আহম্মদ জাফর (৫৯), বাবা মৃত হাজী হেলাল উদ্দিন, মা আলভি বেগম, জেলা নারায়ণগঞ্জ।

১১. জেবুন্নেসা (৩০)। বাবা আব্দুল ওয়াহাব, মা মৃত কামরুন্নাহার, জেলা নোয়াখালী।

১২. মোহাম্মদ সালাউদ্দিন মিঠু (২৫)। বাবা সামসুদ্দিন, মা মাকসুদা, জেলা ঢাকা।

১৩. নাহিদুল ইসলাম তুষার (৩৫)। বাবা মোহাম্মদ ইসহাক আলী, জেলা টাঙ্গাইল।

১৪. তানজিলা মৌলি (২৫)। স্বামী রায়হানুল ইসলাম, জেলা বগুড়া।

১৫. মোহাম্মদ পারভেজ সাজ্জাদ (৪৬)। বাবা মৃত নজরুল ইসলাম মৃধা, মা নাসিমা বেগম, জেলা গোপালগঞ্জ।

১৬. নিরোস (৩৫)। বাবা বিগনারাজ, শ্রীলঙ্কা।

১৭. মোহাম্মদ ইফতিয়ার হোসেন মিঠু (৩৭)। বাবা মোহাম্মদ ইছহাক আলী, জেলা কুষ্টিয়া।

১৮. শেখ জারিন তাসনিম বৃষ্টি (২৫)। বাবা শেখ মোজাহিদুল ইসলাম, মা নীনা ইসলাম, জেলা যশোর।

১৯. মোহাম্মদ ফজলে রাব্বি (৩০)। বাবা মোহাম্মদ জুহিরুল হক, মা শাহানাজ বেগম, জেলা নারায়ণগঞ্জ।

২০. আতিকুর রহমান (৪২)। বাবা আব্দুল কাদের মির্জা, মা হাজেরা বেগম, জেলা শরীয়তপুর।

২১. আনজির সিদ্দিক আবির (২৭)। বাবা আবু বক্কর সিদ্দিক, জেলা লালমনিরহাট।

২২. আব্দুল্লাহ আল ফারুক (৬২)। বাবা মৃত মকবুল আহম্মেদ, জেলা ঢাকা।

২৩. রুমকি আক্তার (৩০)। স্বামী মাকসুদুর রহমান, জেলা নীলফামারী।

২৪. মোহাম্মদ মঞ্জুর হাসান (৪৯)। বাবা মৃত মনসুর রহমান, জেলা নওঁগা ও

২৫. আমির হোসেন রাব্বি (২৯)। বাবা মোহাম্মদ আইয়ুব আলী, মা রত্না খাতুন, জেলা পাবনা।

 

উল্লেখ্য, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে বনানীর ২১তলা এফআর টাওয়ারে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ২১টি ইউনিট সন্ধ্যা ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এতে এখন পর্যন্ত ২৫ জন নিহত ও রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ৭৬ জন ভর্তি আছেন।