পুঁজিবাজার নিয়ে সংসদে যা বললেন অর্থমন্ত্রী

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আসছে অর্থবছরের বাজেটে পুঁজিবাজারের জন্য অবশ্যই প্রণোদনা থাকবে। সেই সঙ্গে পুঁজিবাজারের ক্রুটি-বিচ্যূতি দূর করে শক্তিশালী বাজার গঠন করতে বাজেটেই বিস্তারিত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রোববার জাতীয় সংসদের সংসদ অধিবেশনের প্রশ্নোত্তর পর্বে  টাঙ্গাইল-৬ এর সংসদ সদস্য আহসানুল ইসলাম টিটুর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, আমরা সবাই জানি একটা দেশের অর্থনীতি যতই শক্তিশালী হোক তার প্রথম প্রতিফলন আমরা দেখতে পাই পুঁজিবাজারে। পৃথিবীর সব দেশেই এভাবে পুঁজিবাজার আর অর্থনীতি সম্পৃক্ত থাকে। আমাদের দেশের অর্থনীতি অত্যান্ত চাঙ্গা, অত্যন্ত শক্তিশালী।

তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে ওয়ার্ল্ড ব্যাংক ও আইএমএফর সঙ্গে আমি একাধিক মিটিং করেছি। সেখানেও তারা আমাদের গতিশীলতা দেখে অত্যন্ত উচ্ছ্বসিত হয়েছেন।

মুস্তফা কামাল বলেন, আমি বিশ্বাস করি পুঁজিবাজারকে নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে আমাদের এই এগিয়ে যাওয়া থমকে যাবে।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজার এখন নিয়ন্ত্রণে নেই। তবে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নেই আমি সেটাও বলবো না। পুঁজিবাজারে যে সকল সমস্যা আছে আমরা সেগুলো চিহ্নিত করেছি। সবগুলো সমস্যা এক এক করে সমাধান করব।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মাননীয় স্পিকার আমি আপনাকে আশ্বস্ত করতে চাই যে সরকার পুঁজিবাজার নিয়ে যত্নশীল। আমি নিজেও পুঁজিবাজারের স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে এক-দুই দফা মিটিং করেছি। আরো মিটিং করবো।

তিনি বলেন, অন্যান্য আট-দশটি দেশে পুঁজিবাজার যেভাবে চলে,  সেভাবে চালানোর চেষ্টা করবো। তবে যেসব জায়গায় বিচ্যুতি আছে সেগুলো আমরা অবশ্যই দূর করবো।

মুস্তফা কামাল বলেন, পুঁজিবাজার আর আমাদের অর্থনীতি একে অপরের পরিপূরক। সুতরাং আমি আগেই বলেছি বাজেটে পূঁজিবাজারের জন্য অবশ্যই প্রণোদনা থাকবে। তবে কতটা থাকবে তা এই মূহুর্তে বলতে পারবো না। পুঁজিবাজারকে শক্তিশালী ভাবে চালানোর জন্য যা কিছু দরকার, বাজেটে অবশ্যই আমরা তার ব্যবস্থা করবো।