ঘূর্ণিঝড় ফণী: বহির্নোঙ্গরে বড় জাহাজ থেকে মালামাল খালাস বন্ধ

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :  গভীর সমুদ্রে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে আবহাওয়া অধিদপ্তর মহাবিপদ সংকেত জারি করার পর পরই চট্টগ্রাম বন্দরে তিন নম্বর সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। ফলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ মূল জেটি থেকে সব জাহাজ বহির্নোঙরে পাঠিয়ে দিয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর চট্টগ্রাম বন্দরকে ৬ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে জেটি জাহাজশূন্য করার প্রক্রিয়া শুরু করে। দুপুরের মধ্যে এনসিটি, সিসিটিসহ জেনারেল কার্গো বার্থের জাহাজগুলো একে একে সাগরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

বন্দরে বহির্নোঙ্গরে অবস্থানরত বড় জাহাজগুলোতে পণ্য ওঠানামার কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য পাঁচটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলাসহ সব ধরনের প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের ডেপুটি কনজারভেটর ক্যাপ্টেন ফরিদুল আলম বলেন, ‘চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলার পর আমরা এখানে নিজেদের সতর্কতা হিসেবে ৩ নম্বর অ্যালার্ট জারি করেছি।’

বন্দর সচিব ওমর ফারুক বলেন, ‘সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থাই আমরা নিচ্ছি। বহির্নোঙ্গরে বড় জাহাজ থেকে মালামাল খালাস বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ২১টি জাহাজ বন্দর এলাকায় ছিল। সেগুলোকে বহির্নোঙ্গরে নিরাপদ স্থানে চলে যেতে বলার পাশাপাশি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সবসময় ইঞ্জিন চালু রাখতে বলা হয়েছে।’

আবহাওয়া অধিদপ্তর মহাবিপদ সংকেত জারি করলে তখন চট্টগ্রাম বন্দরে চার মাত্রার সতর্কতা জারি করা হতে পারে। এর অর্থ হল, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্দরের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

এদিকে, বন্দরের জেটি জাহাজশূন্য করার পাশাপাশি কি-গ্যান্ট্রি ক্রেন, শোর ক্রেন, আরটিজি, স্ট্র্যাডেল ক্যারিয়ারসহ সব ধরনের কনটেইনার ও কার্গো হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট বুম আপ করে অ্যাংকর করার প্রস্তুতি চলছে। ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানলে যাতে আমদানি-রফতানি পণ্যভর্তি কনটেইনারের ক্ষয়ক্ষতি না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থ নেওয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম বলেন, আবহাওয়া অধিদফতরের সতর্ক সংকেতের ওপর নির্ভর করে চট্টগ্রাম বন্দরের অপারেশন ধাপে ধাপে বন্ধ করা হয়। সর্বশেষ চট্টগ্রাম বন্দরকে ৬ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সেই অনুযায়ী বন্দর  সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে।