অভয়নগরে জমি উদ্ধার পেতে সংবাদ সম্মেলন

::অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি::

অভয়নগরে দখলী জমি উদ্ধার ও সন্ত্রাসী বাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জমির মালিক এস এম কামরুজ্জামান হিরক ।

শনিবার দুপুরে নওয়াপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এস এম কামরুজ্জামান হিরক বলেন, পৈত্রিকসূত্রে অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া পৌর এলাকার নূরবাগ স্বাধীনতা চত্বর সংলগ্ন গুয়াখোলা মৌজার ২.৪৪ শতক জমির মালিক তিনি।

ওই জমি ৮ ভাই-বোনের মধ্যে ভাগাভাগি হলে হিরক ০.৪২ শতক ভাগে পান। পরবর্তীতে হিরকের ভাই আবুল কালাম আজাদ গোপনে তাঁর অংশের ০.৪২ শতক ও হিরকের অংশের কিছু জমিসহ ০.৭৭ শতক জমি স্থানীয় নিতাই নামের এক ব্যক্তির কাছে বিক্রি করেন।

এ ঘটনায় হিরক তার অংশের জমি না দিতে চাইলে নিতাই যশোর আদালতে দেওয়ানী মামলা করেন। মামলা চলাকালে নিতাই তাঁর ক্রয়কৃত জমি উপজেলার ধোপাদী গ্রামের দাউদ মোল্যার ছেলে হারুনের কাছে বিক্রি করেন।

হারুন জমি দখলে নেয়ার চেষ্টা করলে হিরক ২০০৪ সালে দখল পেতে যশোর আদালতে উচ্ছেদ মামলা করেন। উক্ত মামলায় রায় হিরকের পক্ষে হওয়ায় আদালত গত ১০/০৪/২০১৮ হারুনের থেকে জমি উদ্ধার করে হিরককে বুঝিয়ে দেয়।

সংবাদ সম্মেলনে হিরক আরোও জানান, তাঁর ওই জমির পাশে বুইকারা গ্রামের হেমায়েত উদ্দিনের ছেলে স্থানীয় ওয়ার্ড আ.লীগ নেতা মাসুদ রানা ওরফে বেকারী মাসুদের একটি কারখানা রয়েছে। সে ওই কারখানায় যাতায়াতের রাস্তা নির্মাণের জন্য বিভিন্ন সময় হিরককে ভয়ভীতি ও সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে চাঁদা দাবি করতে থাকে এবং দখলে থাকা ওই জমি ছেড়ে চলে যেতে হুমকি দেয়। ২৪/০৪/২০১৯ বেকারী মাসুদের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাঁর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিরক এন্টারপ্রাইজের সাইনবোর্ড ও মালামাল ভাংচুর করে এবং পাকা দেওয়াল ভেঙ্গে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালা লাগিয়ে দেয়। এ ব্যাপারে অভয়নগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সংবাদ সম্মেলনে এস এম কামরুজ্জামান হিরকের শাশুড়ি ও প্রতিবেশিরা উপস্থিত ছিলেন।