বেনাপোল বন্দর-পেট্রাপোল পরিদর্শনে ভারতীয় হাই কমিশনার

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল >
ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য ও পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াতে বিবিধ সমস্যা পরিদর্শন করতে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর ও চেকপোস্ট পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাস।
শনিবার বিকেলে তিনি বেনাপোল চেকপোস্টে পৌছালে তাঁকে আনুষ্ঠানিকভাবে অভ্যর্থনা জানান বন্দর, কাস্টমস ও বিভিন্ন দফতরের প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ ব্যবসায়ীক নেতৃবৃন্দ। পরে তিনি দু’দেশের বেনাপোল ও পেট্টাপোল বন্দরসহ চেকপোস্টের বিবিধ সমস্য সরেজমিন পরিদর্শন করেন। তাঁর সফরসঙ্গী ছিলেন খুলনা বিভাগীয় সহকারী হাইকমিশনার রাজেস কুমার।
এসময় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল, বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সহকারি কমিশনার উত্তম চাকমা, বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম ও ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল বাশারসহ বন্দর, কাস্টমস এবং বিভিন্ন দফতরের প্রশাসনিক কর্মকর্তাবৃন্দ।
বন্দর ও কাস্টমস সূত্রে জানাযায়, বাংলাদেশের সাথে ভারতের যে পরিমাণ বাণিজ্য হয় তার ৭০ শতাংশ আমদানি-রফতানি হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে। কিন্তু সুষ্ঠুভাবে বাণিজ্য পরিচালনায় এখানে আছে নানা সমস্যা। এছাড়া চেকপোস্টের প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের সামনে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া বিজিবি কর্তৃক সকল পাসপোর্ট যাত্রীদের ব্যাগ তল্লাশীর বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়। এখানে বিদ্যমান সমস্যা ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনা সরেজমিনে পরিদর্শন করতে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার বেনাপোল বন্দর পরিদর্শনে আসেন।
শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল বলেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বেনাপোল স্থলবন্দর ও চেকপোস্টের বিবিধ অসুবিধাসহ ভারতের পেট্রাপোল স্থলবন্দর ও চেকপোস্টের নানা সমস্যা সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন। আশাকরি বিষয়টি দু’দেশের বন্দর ও চেকপোস্টের জন্য মঙ্গলময় হবে।