মাগুরায় গৃহবধূকে ধর্ষণ ও ভিডিও চিত্র ধারণের অভিযোগে মামলা

মাগুরা প্রতিনিধি>
মাগুরা সদর উপজেলার বারাশিয়া গ্রামের এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ঈদের ছুটিতে বেড়াতে আসা ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের ছবি ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় ভীতি দেখানোসহ চাঁদা দাবি করা হয়েছে বলে রোববার দুপুরে মাগুরা সদর থানায় দায়ের করা মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে।
মামলার এজাহারে আরো বলা হয়েছে, ঢাকার মিরপুরে একটি ফ্ল্যাটে সাবলেট হিসেবে ভাড়া থাকতেন ওই গৃহবধূ। ফ্ল্যাটের অন্য বাসিন্দাদের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে ঊঠার সুবাদে তাদের সাথে ঈদে মাগুরায় বেড়াতে আসেন ওই নারী ।
ওই গৃহবধূ জানান, শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে স্বামীর সাথে মুঠোফোনে কথা বলতে বলতে বাড়ির বাইরে আসেন তিনি। এ সময় স্থানীয় তিন যুবক তাকে জোর করে পাশ্ববর্তী পাট ক্ষেতে নিয়ে যায় । পরে সেখানে তাকে ধর্ষণ ও ধর্ষণের পর নগ্ন ছবিসহ ভিডিও ধারণ করেন । এরপর ওই নারীর স্বামীকে চাঁদা দাবি করে না দিলে নগ্ন ছবি ও ভিডিও প্রকাশের হুমকি দেয়। যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে পরে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হয়েছেন তিনি। তারা ওই এলাকার লিটু মোল্যা (২৭), রেজোয়ান মোল্যা (২৯) ও শামীম বিশ্বাস (২১)। মামলায় তিনি নিজেই বাদি হয়েছেন।
মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্তকর্তা সিরাজুল ইসলাম জানান, অপহরণ করে ধর্ষণ ও ধর্ষণের সহায়তা এবং নগ্ন ছবি ও ভিডিও চিত্র ধারণ সেই সাথে চাঁদা দাবির অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতনের আইন এবং পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে । তাদের আটকের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে ।
এ ব্যাপারে মাগুরা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার বিকাশ কুমার বিশ্বাস জানান, ভিকটিমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে ।