প্রেমের কারণে খুন হলো ফেরদৌস

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রেমের কারণে ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়েছে যশোর শহরের বেজপাড়ার সাদেক দারোগা মোড়ের ফেরদৌস হোসেনকে। স্থানীয়রা এ তথ্য জানিয়েছে।

নিহত ফেরদৌসের পিতা আজাদ জানান, আজ দুপুরে ১২টার পর গ্যারেজে রিকসার কাজ করাচ্ছিলাম। এসময় প্রতিবেশী মুন্নি নামে একটি মেয়ে আমাকে ফোন করে বলে, আব্বু সাব্বিররা ফেরদৌসকে হাজারিগেটে ছুরি মেরেছে। সুজনসহ আমরা ওকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি। আপনি হাসপাতালে আসেন।’

তিনি আরো বলেন, মুন্নি নামে ওই মেয়েটিকে ফেরদৌস ভালোবাসে। প্রতিবেশীর মেয়ে হওয়ায় সবসময় আমার বাড়িতে থাকতো। সকালে মুন্নি, সুজন ও ফেরদৌস হাজারিগেট এলাকায় গেলে তাকে ছুরিকাঘাত করেছে। মুন্নির ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও আমি কিনে দিয়েছিলাম। পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।’

স্থানীয় যুবক আলতাফ হোসেন বলেন, ফেরদৌস ও মুন্নি স্বামী-স্ত্রীর মত ঘোরাফেরা করতো। আর সাব্বির মুন্নিকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে তা প্রত্যাখান করেছে বার বার। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ফেরদৌসকে খুন করা হতে পারে বলে ধারণা করছেন তিনি।

সাদেক দারোগার মোড়ের দোকানদান সাইফুল বলেন, মেয়েলি ঘটনায় ফেরদৌসকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে এমনটা সবাই বলাবলি করছে।

পুলিশ তিনজনকে ধরে নিয়ে গেছে। আর সুজনকে হেফাজতে নিয়েছে বলে জানান নিহত ফেরদৌসের পিতা আজাদ। দাফনের পর তিনি মামলা করবেন বলেও জানান।

যশোর পৌরসভার কাউন্সিলার রোকেয়া পারভীন ডলি বলেন, ফেরদৌস নামে এক যুবক খুন হয়েছে জানতে পেরে তিনি এসেছেন। কি কারণে খুন হয়েছে তা তিনি জানতে পারেননি।

কোতয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সমীর কুমার বিশ্বাস জানান, পুলিশের দুই তিনটি টিম কাজ করছে। আমার জানামতে কেউ আটক হয়নি। স্থানীয় আধিপাত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ফেরদৌস খুন হতে পারে বলে ধারনা করেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত. বৃহস্পতিবার পৌনে ১২টার দিকে যশোর শহরের হাজারীগেট এলাকায় ফেরদৌসকে ছুরিকাঘাতে খুন হয়। সে সাদেক দারোগা মোড়ের আজাদের ছেলে।