ডুমুরিয়া গুটুদিয়া ইউপির উপ-নির্বাচনে আ.লীগ প্রার্থীর ছড়াছড়ি

সুব্রত কুমার ফৌজদার, ডুমুরিয়া >
খুলনার ডুমুরিয়ায় গুটুদিয়া ইউপি উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর ছড়াছড়ি। কে পাবে দলীয় মনোনয়ন এ নিয়ে চলছে জল্পনা কল্পনা। আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হতে পারে তৃণমুল থেকে মনোনিত ৩ প্রার্থীর নাম। তবে দল মনোনয়ন না দিলে অনেকে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে বলে জানা গেছে। আগামী ২৫ জুলাই নির্বাচনকে সামনে রেখে এসব প্রার্থী এলাকায় দিনরাত ব্যাপক গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। চেয়ারম্যান পদের এ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের সম্ভাব্য ৮ জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। তবে প্রার্থী আরো দু’একজন বাড়তে পরে। ¬¬এদের মধ্যে ব্যবসায়ী, জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিক রয়েছেন। দলীয় মনোনয়ন পেতে অধিকাংশ প্রার্থী আ’লীগের জেলা ও উপজেলা নেতার শরনাপন্ন হচ্ছেন।
উপজেলার গুটুদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন আগামী ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ৩০ জুন, ২ জুলাই যাচাই-বাছাই, ৯ জুলাই প্রত্যাহার, ১০ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ। জুন মাসের ১৮ তারিখে এ তফসিল ঘোষণা করা হয়। ইউপি উপ-নির্বাচনে ক্ষমতাসিন দলের সম্ভাব্য ৮জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। এরা হলেন, গুটুদিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী নুরুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রনেতা কাজী আলমগীর হোসেন, সাংবাদিক কাজী আবদুল্লাহ, আ’লীগ নেতা কাজী আব্দুল মজিদ, গুটুদিয়া ইউনিয়ন মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি আবুল হাসান গাজী, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ও ইউপি সদস্য সরদার মাসুদ রানা, গুটুদিয়া ইউনিয়ন মহিলা আ’লীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য কবিতা রানী বিশ্বাস ও ব্যবসায়ী তুহিনুল ইসলাম তুহিন। তবে দলীয় মনোনয়ন না পেলে কেউ বা বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
মৎস্য জীবী লীগের উপজেলা কমিটির আহবায়ক এবং ইট-ভাটা ব্যবসায়ী আবুল হাসান গাজী সাড়ে ৮ বছর ধরে গণসংযোগ করে আসছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে গত ইউপি নির্বাচনে আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নৌকা মার্কার প্রার্থীর কাছে ৮৩৯ ভোটে হেরে যান। তার প্রাপ্ত ভোট ছিলো ৪ হাজার ৩৬৬। ভোটে হেরে গেলেও তিনি এলাকা ছাড়েননি। এলাকার মসজিদ-মন্দির থেকে শুরু করে অসহায় মানুষকে বিভিন্নভাবে আর্থিক অনুদান দিয়ে সহযোগিতা করে আসছেন। এ প্রসঙ্গে আবুল হাসান বলেন, আমি এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছি। দলের কাছে মনোনয়ন চাইবো। না পেলে স্বতন্ত্র হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।
এদিকে গুটুদিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব কাজী নুরুল ইসলাম ৬৯ সালে ছাত্রজীবন থেকে তার রাজনৈতিক জীবনযাত্রা শুরু। ৮৪ সাল থেকে তিনি আওয়ামী লীগে রয়েছেন। এবারো দলের কাছে মনোনয়ন চাইবেন। তিনি গত নির্বাচনে তৃণমুলের ভোটে প্রথম থাকলেও দল থেকে তিনি মনোনয়ন বঞ্চিত হন। পরে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে হেরে যান। কাজী নুরুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন দলের সাথে রয়েছি। এলাকায় আমার অবস্থান এখন অনেক ভালো। যে কারণে দলের কাছে মনোনয়ন চাইবো, না পেলে স্বতন্ত্র হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো ইনশাল্লাহ।
সাবেক যুবলীগ নেতা কাজী আলমগীর নিজেকে প্রার্থী হিসেবে এলাকায় ঘোষণা দিয়েছেন। ইউনিয়নের বিভিন্ন জায়গায় তার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দনের পোস্টার দেখা গেছে। তবে সে দলীয় মনোনয়ন না পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন না।
শ্রমিক লীগ নেতা কাজী আব্দুল মজিদ, যুবলীগ নেতা ও ইউপি সদস্য সরদার মাসুদ রানা ও মহিলা আ’লীগ নেত্রী ইউপি সদস্য কবিতা রানী বিশ্বাস দলীয় মনোনয়ন না পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না বলে তারা জানিয়েছেন। নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সাংবাদিক কাজী আবদুল্লাহ ও প্লট ব্যবসায়ী মোস্তফা মোড় এলাকার শেখ তুহিনুল ইসলাম (তুহিন) এর নাম শোনা যাচ্ছে। সাংবাদিক কাজী আবদুল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে ইউনিয়নে গণসংযোগ করে আসছেন এবং বিভিন্ন মন্দির মসজিদে অনুদানসহ গরিব মেহনতি মানুষের বিপদ আপদে পাশে দাঁড়িয়ে সেবা করে আসছেন। আবার তুহিন নতুন মুখ হলেও এলাকায় বেশ পরিচিতি লাভ করেছে।
উল্লেখ্য, গত ১৬ জুন তারিখে ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর ইন্তেকাল করেন। পরে ১৮ জুন গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা সরোয়ার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় ৩ মার্চ গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়।